সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

১১ জানুয়ারি,২০১৮

বাগেরহাটে সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জে র‌্যাব-৮ এর সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু সুমন বাহিনীর ৩ সদস্য নিহত হয়েছেন। এসময় বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
বাগেরহাট: বাগেরহাটে সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জে র‌্যাব-৮ এর সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু সুমন বাহিনীর ৩ সদস্য নিহত হয়েছেন। এসময় বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে সুখপাড়া চর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি।

ঘটনাস্থলে থাকা র‌্যাব-৮ এর অপারেশন অফিসার সোহেল রানা প্রিন্স এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সুন্দরবনে জেলে অপহরণের খবর শুনে বৃহস্পতিবার সকালে বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের সুখপাড়ার চরে র‌্যাব-৮ এর একটি দল অভিযান শুরু করে। র‌্যাব সদস্যরা সুখপাড়ার চর এলাকায় পৌছালে সুন্দরবনের ভিতরে লুকিয়ে থাকা বনদস্যুরা র‌্যাবের উপর গুলিবর্ষণ করে। একপর্যায়ে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় একঘন্টা ধরে চলা বন্দুকযুদ্ধের পর বনদস্যুরা রণে ভঙ্গ দিয়ে সুন্দরবনের গহীনে পালিয়ে যায়।

পরে ওই এলাকায় তাল্লাশি করে তিন বনদস্যুর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে র‌্যাব। এ সময়ে বনের ভিতর ছড়িয়ে থাকা ২টি এক নলা বন্দুক, ১টি কাটা রাইফেল, ১টি পাইপগান ও ৩৯ রাউন্ড বিভিন্ন প্রকারের গুলি উদ্ধার করে।

র‌্যাব জানায়, বন্দুকযুদ্ধে নিহত বনদস্যুরা হলো জাকারিয়া সরদার (৩০), জুলফিকার শেখ (৩৫), খোকন মিনা (৪৩)। তবে সুন্দরবনের বনজীবী ও জেলেরা নিহত ৩ বনদস্যুর কোন জেলায় তা বলতে পারেননি। তবে র‌্যার সদস্যরা বনদস্যু সুমন বাহিনীর একটি আস্তানা গুড়িয়ে দিয়েছে। উদ্ধারকৃত মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরনের উদ্দেশ্যে বাগেরহাটের শরনখোলা থানায় হস্তান্তর করা হবে।

বাগেরহাটে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু নিহত, ছয় জেলে উদ্ধার
বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনে নৌ-পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ফরিদ হোসেন (৩৫) নামে এক বনদস্যু নিহত হয়েছেন।

০৯ জানুয়ারি সোমবার দিবাগতরাত আড়াইটার দিকে চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশনের শ্যালা নদী সংলগ্ন কাতিয়ার খালে এ ঘটনা ঘটে। এসময় দস্যুদের কাছে জিম্মি থাকা ৬ জেলেকে উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধারকৃত জেলেরা হলেন, শরণখোলা উপজেলার দক্ষিণ বাধাল গ্রামের ইসমাইল ফকিরের ছেলে শাহ্ আবুল ফকির (২৮), উত্তর রাজাপুর গ্রামের ইসমাইল খানের ছেলে সুমন খান (২০), একই গ্রামের মোফাজ্জেল আকনের ছেলে সুমন আকন (২৮), রতিয়া রাজাপুর গ্রামের রুহুল পহলানের ছেলে ইসরাফিল পহলান (২৩), মোংলা উপজেলার খাসেরডাঙ্গা গ্রামের নিরোধ হালদারের ছেলে প্রতুল হালদার (২৮) এবং জয়মনি গ্রামের ছত্তার হাওলাদারের ছেলে হাফিজ হাওলাদার (২৫)।

ধানসাগর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আকবর আলী বলেন, অপহৃত ওই জেলেদের উদ্ধারে অভিযান চালানো হয়। বনের ভেতর থেকে জেলেদের চিৎকার ভেসে আসে। এসময় সামনের দিকে অগ্রসর হলে পুলিশকে লক্ষ্য করে দস্যুরা গুলি ছুঁড়তে থাকে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।

প্রায় আধা ঘণ্টা গোলা-গুলির পর টিকতে না পেরে দস্যুরা বনের গহীনে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে গুলিবিদ্ধ ওই দস্যুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এসময় দস্যুদের আস্তানা থেকে জিম্মি ৬ জেলে, একটি টুটুবোর রাইফেল, একটি এয়ারগান, ৬টি মোবাইল ফোনসেট, একটি ডিঙি নৌকাসহ বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়। নিহত দস্যু ফরিদের বাড়ি মোংলা উপজেলার চিলা ইউনিয়নের বৌদ্দমারী গ্রামে।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

নাটোরে মহিলা জামায়াতের ৪ নারীসহ ৭ জন আটক

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএননাটোর: নাটোরে মহিলা জামায়াতের পূর্বাঞ্চলীয় আমীর মোছাঃ নুরুন নাহারসহ ৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটকক . . . বিস্তারিত

টঙ্গীতে দুই প্রবাসী হত্যা মামলার প্রধান আসামি হুমায়ুনসহ পাঁচজন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনঢাকা: গাজীপুরের টঙ্গীতে দুই প্রবাসী হত্যা মামলার প্রধান আসামি হুমায়ুনসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তারের তথ্ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com