ইমরানের বয়স ২১ নয়, বিয়ে না করে দেশে ফিরছেন ফিয়া

০৬ ডিসেম্বর,২০১৭

ইমরানের বয়স ২১ নয়, বিয়ে না করে দেশে ফিরছেন ফিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: ইমরানের বয়স ২১ না হওয়ায় তাকে বিয়ে না করে মনে কষ্ট নিয়ে দেশে ফিরছেন প্রেমের টানে পটুয়াখালীর বাউফলে ছুটে আসা ইন্দোনেশিয়ান তরুণী নিকি উল ফিয়া।

ইতোমধ্যে বিমানের টিকিটের জন্য ট্রাভেল এজেন্সির সঙ্গে কথাও বলেছেন নিকি উল ফিয়া। যার টানে বাংলাদেশে ছুটে আসা সেই প্রেমিক ইমরানের বিয়ের বয়স না হওয়ায় তাকে ফিরে যেতে হচ্ছে দেশে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তরুণীর প্রেমিক ইমরানের ২১ বছর না হওয়ায় আইনি জটিলতা দেখা দেয়। এমন পরিস্থিতিতে স্বদেশে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। তবে ইমরানের বিয়ের বয়স না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন নিকি উল ফিয়া।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাউফলের দাসপাড়া ইউনিয়নের দাশপাড়া গ্রামের পুরান বাবুর্চি বাড়ির দেলোয়ার হোসেনের ছেলে পটুয়াখালী সরকারি কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র মো. ইমরান হোসেনের (১৯) সঙ্গে এক বছর আগে ফেসবুকে ইন্দোনেশিয়ান তরুণী নিকি উল ফিয়ার (২৪) পরিচয় হয়।

একপর্যায়ে প্রেমের সর্ম্পকে জড়ান তারা। নিকি উল ফিয়া ইন্দোনেশিয়ার সুরা বায়া বিভাগের জাওয়া গ্রামের মি. ইউ লি আন থোর মেয়ে। তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করছেন।

পটুয়াখালীর বাউফলের ছেলে ইমরানের ভালোবাসার টানে গত ১ ডিসেম্বর সুদূর ইন্দোনেশিয়া থেকে ঢাকা চলে আসেন নিকি উল ফিয়া। সেখান থেকে ৩ ডিসেম্বর প্রেমিক ইমরানের পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার দাশপাড়া গ্রামের বাড়িতে যান তিনি।

স্থানীয়রা জানায়, প্রেমিকের বাড়িতে আসার পর নিকি যখন জানলেন, আইন অনুযায়ী প্রেমিক ইমরানের বিয়ের বয়স ২১ হয়নি। তখন তিনি হতাশ হয়ে পড়ে। তার হাস্যোজ্জ্বল মুখ মলিন হয়ে যায়। নিরবে চোখের পানিও ফেলেছেন তিনি। পরে স্বদেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নেন নিকি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নিকি উল ফিয়া বলেন, ইমরানের বিয়ের বয়স না হওয়ার খবরটি জানার পর আমি ব্যথিত হই। ২-১ দিনের মধ্যে আমার দেশে চলে যাব। বিমানের টিকিটের জন্য ট্রাভেল এজেন্সির সঙ্গে কথা হয়েছে। তবে ইমরান ও তার পরিবারের সদস্যদের ব্যবহারে আমি মুগ্ধ। ইমরানের বিয়ের বয়স না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করব আমি। তার বিয়ের বয়স পূর্ণ হলে তখনই বিয়ে করব আমরা।

এর আগে প্রেমের টানে বাংলাদেশে ছুটে আসা মার্কিন তরুণী মেনডি কুসার (৩৯) দেশে ফিরে যান। নারায়ণগঞ্জের তরুণ ফারহান আরমানকে (৩০) বিয়েও করেন তিনি। ভালোবাসার মানুষটিকে বিয়ে করে ৭-৮ মাস সংসার করলেও পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর ঘর ছেড়ে দেশের মাটিতে চলে যেতে বাধ্য হন তিনি।

ফেসবুকে প্রেম, ইন্দোনেশিয়ার তরুণী বাউফলে
পটুয়াখালী: ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্র ধরেই কথা বলতে বলতে বন্ধুত্ব ও প্রেম। আর সেই প্রেমের টানেই ইন্দোনেশিয়া থেকে বাংলাদেশের পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় চলে এসেছেন এক তরুণী। ওই তরুণীর নাম নিকি উল ফিয়া (২০)।

টুয়াখালীর বাউফল উপজেলার দাশপাড়া গ্রামের স্নাতক পড়ুয়া ইমরান হোসেন (২২) ভালোবাসার মানুষটিকে স্বাগত জানাতে শুক্রবার রাজধানীর হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যান। পরদিন নিকি উল ফিয়াকে নিয়ে গ্রামের বাড়িতে ফেরেন। নিকি উল ফিয়া এখন সেখানেই আছেন।

ইমরান হোসেন দাশপাড়া গ্রামের বাবুর্চি বাড়ির মো. দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। তিনি পটুয়াখালী সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিষয়ের সম্মান তৃতীয় বর্ষের ছাত্র।

নিকি উল ফিয়ার ভাষ্য, তিনি মুসলিম পরিবারের সন্তান। ইন্দোনেশিয়ার সুরা বায়া বিভাগের জাওয়া গ্রামের ইউ লি আন থোর মেয়ে। তিনি শিক্ষকতা করেন।

ইমরান বলেন, প্রায় এক বছর আগে ফেসবুকে ওই তরুণীর সঙ্গে তার পরিচয়। শুরুতে নিকি উল ফিয়া আমার দেশ, সংস্কৃতি ও পরিবার সম্পর্কে জেনে নিয়েছে। পরে আমাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। আমার কোনো আপত্তি না থাকায় নিকি উল ফিয়া শুক্রবার উড়োজাহাজে করে হজরত শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছায়। এখন সে আমার বাড়িতেই আছে।

নিকি উল ফিয়া বলেন, ইমরানের প্রতি গভীর ভালোবাসার টানেই বাংলাদেশে এসেছি। তাকে বিয়ে করতে চাই। বিষয়টি তিনি তার মা-বাবাকে জানিয়েই বাংলাদেশে এসেছেন বলে দাবি করেছেন।

তিনি আরও বলেন, ইমরানের পরিবারের সদস্যদের আচরণ ও ভালোবাসায় তিনি মুগ্ধ।

ইমরানের বাবা দেলোয়ার হোসেন বলেন, এখানে এসে নিকি উল ফিয়া তার বাবা ও মায়ের সঙ্গে কথা বলেছে। নিকি উল ফিয়া চাইলে তিনি তার ছেলের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি আছেন বলেও জানিয়েছেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

সাংবাদিক মারধরের মামলায় ভূমিমন্ত্রীর ছেলে কারাগারে

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনপাবনা: পাবনায় ঈশ্বরদীতে সাংবাদিককে মারধরের মামলায় ভূমিমন্ত্রীর ছেলে শিরহান শরীফ তমালের জামিন না- . . . বিস্তারিত

রোগীর পেটে গজ রেখে সেলাইয়ে ৯ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের নির্দেশ হাইকোর্টের

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: পটুয়াখালীতে সিজারের সময় রোগীর পেটে গজ রেখেই অপারেশন শেষ করা কথিত চিকিৎসক ও ক্লিনিককে নয় লা . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com