ব্রেকিং সংবাদ: |
  • ২০ দলীয় জোটের বৈঠক রাতে
  • কিউবায় কয়েক যুগ পর কাস্ত্রো পরিবারের বাইরে কেমন হবে নতুন নেতৃত্ব
  • তারেক রহমানকে ফেরানোর উদ্যোগ সরকারের, বিএনপি ও আইন কী বলছে

বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর, অধ্যক্ষসহ আটক ৫

১৯ মার্চ,২০১৭

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
রাজশাহী: রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার রাজাবাড়ী হাট ডিগ্রী কলেজের ম্যানেজিং কমিটির পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুরের নাটক সাজিয়ে অন্যকে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেরাই ফেঁসে গেছেন। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিরেন্দ্রনাথ দত্ত, ঐ কলেজের প্রভাষক আব্দুস সবুর, কলেজের পিয়ন অকিল।

শনিবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে নিজ বাড়ী থেকে তাদের আটক করে গোদাগাড়ী মডেল থানা পুলিশ।

অপর দিকে একই অভিযোগে উপজেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমন মণ্ডলের পিতা মো. রবিউল করিম রবি ও উপজেলা বিএনপি যুবদলের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মো. মাসুদকে আটক করে রাজশাহী জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে রাজাবাড়ী হাট ডিগ্রী কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শাহাদুল হক মাস্টারের লোকজন কলেজে যায়। এ সময় কলেজের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিরেন্দ্রনাথ দত্ত ও প্রভাষক মাহামুদ আক্তারের সাথে কথা কাটাকাটি ও ধস্তাধস্তি হয়।

এতে গোদাগাড়ী মডেল থানা পুলিশ খবর পেয়ে ওসি হিপজুর আলম মুন্সি ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে আসে।

গোদাগাড়ী মডেল থানার ওসি হিপজুর আলম বলেন, সেই দিন বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবি ভাঙ্গার কোনো ঘটনা ঘটে নি। বৃহস্পতিবারের দিন কলেজের অধ্যক্ষ নিরেন্দ্রনাথ দত্ত নাটকীয়ভাবে গোদাগাড়ী মডেল থানায় কলেজের সাবেক সভাপতি শাহাদুল হক মাস্টারসহ কয়েক জনের নামে জিডি করতে আসেন। বিষয়টি তদন্ত করে কোনো আলামত পাওয়া যায়নি।

শনিবার সকালে কলেজের শিক্ষক কর্মচারী বৃন্দ কলেজের অফিস ঘর খুললে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুরের কথা কলেজের সবাই জানা জানি হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ বিক্ষোভে ফেটে পড়ে।

স্থানীয়রা জানায়, কলেজের অধ্যক্ষ নিরেন্দ্রনাথ দত্ত ও তার সহযোগীরা কলেজের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ও রাজশাহী জেলা ডেপুটি কমান্ডারকে ফাঁসাতে এমন নাটক করে। পরে বিষয়টি টের পেয়ে শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে গোদাগাড়ী থানা পুলিশ ৩ জন ও রাজশাহী জেলার গোয়েন্দা পুলিশ ২ জনকে আটক করে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ও শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুরের ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

গোদাগাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ বলেন, কলেজটিকে নিয়ে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও অসাধু শিক্ষক কর্মচারীরা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুরের ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় না আনা হলে হাজার হাজার জনতা রাস্তায় নামবে বলে হুশিয়ারি দেন।

রাজাবাড়ী হাট কলেজ কমিটির সাবেক সভাপতি শাহাদুল হক মাস্টার বলেন, ছবি ভাংচুরের ঘটনায় আমি বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেছি। পূর্ব হতেই কলেজটির নানা অনিয়মের প্রতিবাদ করায় আমার বিরুদ্ধে নানান ষড়যন্ত্র করে আসছে।

গোদাগাড়ী মডেল থানার ওসি হিপজুর আলম মুন্সি আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

বাংলাদেশ রেলওয়েতে কেন ১৪ হাজার পদ খালি

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন রেলওয়ে ভয়াবহ জনবল সংকটে রয়েছে। রেলওয়ের ১৪ হাজার পদ খা . . . বিস্তারিত

অবশেষে নর্দমায় পড়ে যাওয়া গাভীটি উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনরাজশাহী: একটি জীবন বাঁচাতে এগিয়ে এসেছেন হাজারো মানুষ। কিছুতেই যখন পারছিলেন না সাধারণ জনতা তখন খব . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com