সুনামগঞ্জে বৃদ্ধকে জবাই করে হত্যা

১৬ ফেব্রুয়ারি,২০১৭

নিজস্ব প্রতিনিধি

আরটিএনএন

সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারের পল্লীতে আব্দুছ ছাত্তার (৭০) নামের এক বৃদ্ধকে জবাই করে নৃসংশভাবে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত আব্দুছ ছাত্তার ওই গ্রামের মৃত মন্তাজ মেম্বারের পুত্র।


বুধবার গভীর রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের দলেরগাঁও গ্রামে এ লোমহর্ষক ঘটনাটি ঘটেছে।


নিহতের স্ত্রী আনোয়ারা বেগমের দাবি, ‘বুধবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে তাদের প্রতিপক্ষ নিহতের আপন ভাই আব্দুর রহিম, কালা মিয়াসহ তার ভাই ভাতিজারা জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ ও মামলা মোকদ্দমা নিষ্পত্তি করার কথা বলে আমার স্বামীকে ঘর থেকে ডেকে নেন। পরে রাত ঘনিয়ে গেলেও তিনি আর বাড়ি ফিরেননি। সকালে বাড়ির পার্শ্ববর্তী খালে তার জবাই করা লাশ দেখতে পাই।


বৃহস্পতিবার দুপুরে সুনামগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার কানন কুমার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।


বৃহস্পতিবার সকালে নিহতের বাড়ীর পার্শ্ববর্তী খালে বৃদ্ধের গলাকাটা লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে থাকে। এসময় নিহতের ছোট ভাই আব্দুর রহিম (৪৫), আবুল কালাম ওরফে কালা মিয়া (৪০), কালা মিয়ার স্ত্রীসহ সন্দেহভাজন ৫জনকে আটক করেছে পুলিশ। দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা জমা নিয়ে আপন ভাইদের সাথে বিরোধ চলে আসছিল নিহত আব্দুছ ছাত্তারের। এ নিয়ে উভয়পক্ষে মামলা মোকদ্দমাও চলছে।


দোয়ারাবাজার থানার ওসি এনামুল হক বলেছেন, হত্যাকান্ডের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নিহতের আপন দুই ভাইসহ সন্দেহভাজন ৫জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে আনা হয়েছে। দুপুরে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

নারায়ণগঞ্জে ১২ টি হ্যান্ড গ্রেনেডসহ ২৪০ গুলি উদ্ধার

                     . . . বিস্তারিত

হবিগঞ্জের আলোচিত চার শিশু হত্যায় তিনজনের ফাঁসি

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনসিলেট: হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় আলোচিত চার শিশু হত্যা মামলার রায়ে তিনজনের ফাঁসি ও দুইজনের সাত বছ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com