গাজীপুরে জোটের সমর্থন পাওয়ার আশা জামায়াত নেতার

১৫ এপ্রিল,২০১৮

জামায়াত নেতার

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
গাজীপুর: আসন্ন গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ২০ দলীয় জোটের সমর্থন পাওয়ার প্রত্যাশা করেছেন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ও মহানগর জামায়াতে ইসলামীর আমীর অধ্যক্ষ সানাউল্লাহ।

রবিবার রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে তার মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে বৈধ ঘোষিত হলে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিগত দিনে জাতীয় ও স্থানীয় সকল নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত প্রার্থীরা অংশগ্রহণ করেছেন। জাতীয় সংসদেও জামায়াত সদস্যদের প্রতিনিধিত্ব ছিল। জামায়াতের নিবন্ধন প্রক্রিয়া বাতিল হওয়ায় দলীয় পরিচয়ে নির্বাচনে অংশ নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। তবে একটি দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দল হিসেবে জনগণের প্রতিনিধিত্ব করতেই তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন বলে জানান অধ্যক্ষ সানাউল্লাহ।

গাজীপুর সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে ১০ জনের মনোনয়ন দাখিল

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ছিল বৃহস্পতিবার। এদিন ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দলের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মনোনীত প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিনে বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত মেয়র পদে ১০ জন, সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডের ১৯টি কাউন্সিলর পদের জন্য ৮৭ জন ও ৫৭টি সাধারণ ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৯৪ জন প্রার্থীসহ মোট ৩৯১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দেন।

মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষদিনে সকাল থেকেই প্রার্থী, কর্মী ও তাদের সমর্থকদের গাড়ি ভাড়া করে লোকজন নিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিস জেলা শহরের রথখোলার বঙ্গতাজ অডিটরিয়ামের দিকে ছুটতে থাকে। এ সময় প্রার্থীদের ব্যানার, পোস্টার ও দলীয় প্রতীক নিয়ে মিছিল ও সমাবেশ করে তাদের কর্মী-সমর্থকরা শোডাউন করে। দুপুর না গড়াতেই প্রার্থীদের কর্মী সমর্থকদের উপস্থিতিতে আশপাশের এলাকাসহ পুরো শহর সরগরম হয়ে উঠে। সৃষ্টি হয় যানজটের। রিকশা পর্যন্ত চলার উপায় ছিল না। এ যেন ছিল নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙের মহোৎসব।

নির্বাচনে শেষ দিন পর্যন্ত মোট ৩৯১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলম, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ও দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাসান উদ্দিন সরকারসহ মেয়র পদে মোট ১০ জন প্রার্থী তাঁদের মনোনয়নপত্র জমা দেন। মেয়র পদে অন্য প্রার্থীরা হলেন ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা ফজলুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. নাসির উদ্দিন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মো. জালাল উদ্দিন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কাজী মো. রুহুল আমিন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আফসার উদ্দিন, মো. সানাউল্লাহ মিয়া ও ফরিদ আহমেদ। মেয়র পদের নয়জন প্রার্থী বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর আগে বুধবার জাসদ মনোনীত প্রার্থী রাশেদুল হাসান রানা তাঁর মনোনয়নপত্র জমা দেন।

সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডের ১৯টি কাউন্সিলর পদের জন্য ৮৭ জন ও ৫৭টি সাধারণ ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৯৪ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দেন।

বৃহস্পতিবার মেয়র পদপ্রার্থীদের পাশাপাশি সংরক্ষিত ওয়ার্ড ও সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীরাও উৎসবমুখর পরিবেশে জেলা শহরের বঙ্গতাজ অডিটরিয়ামে নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে তাদের মনোনয়নপত্র জমা দেন।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে ১৮ জন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৯৭ জন এবং সাধারণ আসনের কাউন্সিলর পদে ৩৮৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন।

বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলম রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে তার মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান, আওয়ামী লীগ নেতা কাজী আলিম উদ্দিন বুদ্দিন, আব্দুল হাদী শামীম, মো. মুজিবুর রহমান, মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কামরুল আহসান সরকার রাসেল, মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সফিকুল আলম বাবুল, আব্দুর রউফ নয়ন, অধ্যক্ষ মো. মহিউদ্দিন মহি, কাজী ইলিয়াস, যুগ্ম সম্পাদক মতিউর রহমান মতিসহ প্রমুখ নেতা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় জাহাঙ্গীর আলম বক্তব্য দিতে গিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সুন্দর ও বাসযোগ্য মহানগর গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মনোনয়নপত্র জমা দেন বিএনপি মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। এ সময় তার সঙ্গে বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সম্পাদক ও জেলা বিএনপির সভাপতি এ কে এম ফজলুল হক মিলন ও সাধারণ সম্পাদক সায়েদুল আলম বাবুল, বিএনপি নেতা সালাহ উদ্দিন সরকার, ডা. মাজহারুল আলম, মীর হালিমুজ্জামান ননী ও সোহরাব উদ্দিনসহ প্রমুখ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

হাসান উদ্দিন সরকার মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে সবার সহযোগিতা চান এবং এই নির্বাচনকে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে রূপান্তরের কথা বলেন। সেই সঙ্গে তিনি নির্বাচনে সেনা মোতায়েনেরও দাবি জানান।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. রকিব উদ্দিন মণ্ডল বলেন, ‘আচরণবিধি যাতে লঙ্ঘিত না হয়, সে ব্যাপারে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সঙ্গে কথা বলেছি। প্রার্থীদের সঙ্গেও কথা হয়েছে মনোনয়নপত্র দাখিল করার সময় কোনো প্রার্থীর সঙ্গে যেন পাঁচজনের বেশি লোক না আসে। তারপরও পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেটদের বলে দিয়েছি কোথাও যাতে কেউ আচরণবিধি লঙ্ঘন না করেন। আচরণবিধি যাতে লঙ্ঘন না হয় এজন্য আমরা বিভিন্ন ধরনের প্রচেষ্টা চালাচ্ছি। আচরণবিধি বিলি করছি, মাইকিং দিচ্ছি, প্রশাসনও চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।’

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মনোনয়নপত্র উত্তোলন ও জমা দেওয়ার শেষ দিন ছিল আজ। তফসিল অনুযায়ী প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ১৫-১৬ এপ্রিল এবং প্রার্থিতা (মনোনয়নপত্র) প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৩ এপ্রিল। ২৪ এপ্রিল প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে এবং ১৫ মে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

গত ৩১ মার্চ গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠার পর এটি হবে এ সিটি করপোরেশনের দ্বিতীয় নির্বাচন। এবার গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৫৭টি সাধারণ ও ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৬৪ হাজার ৪২৫ জন। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে ঢাকার আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মণ্ডলকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য

মতামত দিন

জাতীয় পাতার আরো খবর

যে কারণে ইসির সভা বর্জন করলেন মাহবুব তালুকদার

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতির সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কিত কমিশন সভা চলাকালে &l . . . বিস্তারিত

সংসদের শেষ অধিবেশনে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের সংশোধন দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: বর্তমান দশম জাতীয় সংসদের শেষ অধিবেশনেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নয়টি ধারা সংশোধনের দাবি জান . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com