কেবিন ক্রু নাবিলা বেঁচে আছেন

১৩ মার্চ,২০১৮

কেবিন ক্রু নাবিলা বেঁচে আছেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
কাঠমান্ডু: নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হওয়া ইউএস বাংলা এয়ার লাইন্সের কেবিন ক্রু শারমিন আক্তার নাবিলা বেঁচে আছেন। যদিও দেশের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে তার মৃত্যুর খবর প্রকাশিত হয়।

কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের একজন মুখপাত্র তার বেঁচে থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। হাসাপাতালের মুখপাত্র শর্মিলা বলেন, শারমিন হাসপাতালের প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে চিকিৎসাধীন আছেন।

বিমানের ফ্লাইট তালিকায় তার নামসহ আরো ছিল পাইলট আবিদ সুলতান, কো পাইলট পৃথুলা রশীদ, ফ্লাইট এ্যাটেনডেন্ট খাজা হুসাইন মুহাম্মদ সাফে।

এদিকে শারমিনের মৃত্যুর খবর শুনে সোমবার তার দুইবছর বয়সী মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে যায় বাসার কাজের বুয়া। এ নিয়ে উত্তরার পশ্চিম থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। পরে মঙ্গলবার মেয়েটিকে উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী।

নিহত কেবিন ক্রুর মেয়েকে কাজের লোক নয়, রহস্যজনকভাবে খালা নিয়ে গেছেন

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় নিহত ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের কেবিন ক্রু ফারহিন নাবিলার মেয়ে ইনায়া ইমাম হিয়ার খোঁজ পাওয়া গেছে। নিখোঁজ কেবিন ক্রুর মেয়েকে কাজের মেয়ে নয়, রহস্যজনকভাবে খালা নিয়ে গেছেন।

মঙ্গলবার বিকেলে বিষয়টি জানিয়েছেন রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী হোসেন। এর আগে নিহত কেবিন ক্রুর মেয়েকে কাজের মেয়ে চুরি করে নিয়ে গেছে, আবার কেউ কেউ অভিযোগ করছিলেন শিশুটিকে অপহরণ করা হয়েছে। তবে পুরো বিষয়টি বিভ্রান্তি ও রহস্যজনক বলে জানিয়েছেন। আইন-শৃংখলাকারী বাহিনী।

এদিকে এত আত্মীয়-স্বজন থাকতে নিহত ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের কেবিন ক্রু ফারহিন নাবিলা এতকাল কাজের মেয়ের কাছে মেয়ে ইনায়া ইমাম হিয়াকে রেখেই ডিউটি স্টেশনে যেতেন, তখন দরদী না হয়ে মৃত্যুর পরই অতিউৎসাহী কার্যক্রম রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের প্রধান নির্বাহী ইমরান আসিফ বলেন, ‘নাবিলা আমাদের কেবিন ক্রু ছিলেন। কাঠমান্ডুতে তিনি মারা গেছেন বলেই আমরা ধারনা করছি।’

হিয়ার চাচি ফাতেমা হোসেন বলেন, ‘শুনেছি থানায় নাকি হিয়ার খালাকে ডাকা হবে। পুলিশ আমাদেরও থানায় যেতে বলেছে। তাই আমার শ্বাশুড়িসহ আরো কয়েকজন থানায় গেছেন।’

ওসি বলেন, বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর গতকাল সোমবার দুপুর থেকে শিশুটির খোঁজ পাচ্ছিল না পরিবার। বাসার গৃহকর্মী হিয়াকে নিয়ে পালিয়ে গেছে, এমন অভিযোগ করে গতকাল রাতে হিয়ার দাদি উত্তরা পশ্চিম থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

ওসি আলী হোসেন আরো বলেন, ‘অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা ওই গৃহকর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি। তারপর আমরা নিশ্চিত হতে পারি যে শিশুটির খালা তাকে নিয়ে গেছে। এরপর শিশুটির খালার সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করে জানতে পারি যে হিয়া তার কাছেই আছে।’

ওসি বলেন, ‘তার (হিয়া) মা মারা গেছেন। দুটি কারণ থাকতে পারে বলে আমরা মনে করছি। প্রথমত, মায়ের অনুপস্থিতে শিশুটির নিরাপত্তার জন্য তার খালা তাকে নিয়ে যেতে পারে। দ্বিতীয়, সম্পত্তি নিয়ে কোনো ঝামেলাও থাকতে পারে।’

সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সময় বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। এ ঘটনায় ৫০ জন নিহত হয়। নাবিলাও নিহত হন। তার আগে কেবিন ক্রু নাবিলার একমাত্র ২ বছরের মেয়েকে প্রতিদিন এর মতো আজও বাসার কাজের বুয়ার কাছে বাবুটাকে রেখে ফ্লাইট এ চলে যায়। কিন্ত বিমান ক্রাস করার সংবাদ শুনে কাজের বুয়া মেয়েটি কে চুরি করে পালিয়ে গেছে বলে কেউ কেউ রটিয়ে দেয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ফেসবুক সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাবিলার মেয়েকে নিয়ে নিচের স্ট্যাটাসটি ভাইরাল হয়।

মন্তব্য

মতামত দিন

জাতীয় পাতার আরো খবর

ইয়াবা পরিবহনে পাঠাও চালক!

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: অনলাইন ভিত্তিক রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান পাঠাও‌’র চালকরা জড়িয়ে পড়েছে ইয়াবা পরিবহন . . . বিস্তারিত

অক্টোবরে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল: ইসি সচিব

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনটাঙ্গাইল: অক্টোবরের শেষের দিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন নির . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com