জিয়া অরফানেজ মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের পরবর্তী দিন ধার্য

১১ জানুয়ারি,২০১৮

জিয়া অরফানেজ মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের পরবর্তী দিন ধার্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার পরবর্তী যুক্তিতর্কের জন্য আগামী ১৬, ১৭ ও ১৮ জানুয়ারি পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান এই দিন ঠিক করেন।

এর আগে বেলা ১১টা ৫ মিনিটের দিকে আদালতে পৌঁছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। এরপর আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। গতকাল বুধবারের ধারাবাহিকতায় আজ আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক করেন তাঁর আইনজীবী সাবেক স্পিকার ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় অপর একটি মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মামলায় খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান ছাড়া বাকি আসামিরা হলেন মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

এর আগে গত ৬ জানুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার আদালত পরিবর্তনের আবেদন আবারো খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্টের আপিল বিভাগ।

সোমবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা এই মামলা বর্তমানে বিশেষ জজ আদালত-৫–এ বিচারাধীন আছে। ইতিমধ্যে এই মামলায় খালেদা জিয়া আত্মপক্ষ সমর্থন করে মোট চার দিন বক্তব্য দিয়েছেন। আগামী বৃহস্পতিবার আত্মপক্ষ সমর্থনের পরবর্তী তারিখ ধার্য রয়েছে।

সোমবার আদালতে শুনানিতে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খোরশেদ আলম খান, খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন এ জে মোহাম্মদ আলী। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

অরফানেজ দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে স্থায়ী জামিন হাইকোর্টের

জিয়া অরফানেজ ও চ্যারিটেবল ট্রাষ্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে স্থায়ী জমিন দিয়েছে হাইকোর্ট। মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তিনি জামিনে থাকবেন।

বুধবার বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার জাকির হোসেন ভূইয়া।

দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। তিনি বলেন, এ মামলায় ২০০৮ সালে খালেদা জিয়া জামিন দিয়ে রুল জারি করেন। কিন্তু দুদককে তখন পক্ষভূক্ত করা হয়নি। সম্প্রতি পক্ষভূক্ত হতে দুদক আবেদন করার পর হাইকোর্ট তা মঞ্জুর করে।

পরে এ রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে রুল মঞ্জুর করেন আদালত। অর্থাৎ এ মামলায় খালেদা জিয়া স্থায়ী জামিন পেয়েছেন। তবে জামিনের অপব্যবহার করলে বিচারিক আদালত তার জামিন বাতিল করতে পারবে।
দুদকের আইনজীবী খোরশেদ আলম জানিছেন, হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত করেননি আপিল বিভাগ। ফলে নিম্ন আদালতে এ মামলার কার্যক্রম চলতে কোনো বাধা নেই।

খালেদা জিয়ার পক্ষের আইনজীবী বদরুদ্দোজা বাদল জানিয়েছেন, হাইকোর্টের রায়ের সার্টিফায়েড কপি পাওয়ার পর আমরা নিয়মিত আপিল আবেদন করব।

মন্তব্য

মতামত দিন

জাতীয় পাতার আরো খবর

গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য সব দলের অংশগ্রহণ জরুরি: ইউরোপীয় ইউনিয়ন

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সব দল অংশগ্রহণ করবে বলে আশা করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। আর এই নি . . . বিস্তারিত

মাহবুব তালুকদারের প্রস্তাবনা অযৌক্তিক ও সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক: কবিতা

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেছেন, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের কয়েকটি প্রস্তাবনা অ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com