ইরান-ইরাক সীমান্তে ভয়াবহ ভূমিকম্পে হতাহতের ঘটনায় জামায়াতের শোক

১৪ নভেম্বর,২০১৭

জামায়াতের শোক

নিউজ ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: ইরান ও ইরাক সীমান্তবর্তী এলাকায় গত ১২ নভেম্বর রাতের ভয়াবহ ভূমিকম্পে চার শতাধিকেরও বেশি লোক নিহত ও ৭ হাজারেরও বেশি লোক আহত হওয়ার ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান।

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘ইরান ও ইরাক সীমান্তবর্তী এলাকায় ভয়াবহ ভূমিকম্পে জানমালের বিরাট ক্ষয়ক্ষতিতে অন্য সবার মতো বাংলাদেশের জনগণও গভীরভাবে শোকাহত।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করি ইরান ও ইরাক সরকার তাদের জনগণের জানমালের এ বিরাট ক্ষয়ক্ষতি শিগগিরই কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবেন। ভূমিকম্পে যারা নিহত হয়েছেন আমি তাদের রূহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং তাদের শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজন ও ইরান এবং ইরাক সরকার, জনগণ ও আহতদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে মহান আল্লাহর দরবারে দোয়া করছি।’

ইরান-ইরাক সীমান্তের ভূমিকম্পটি চলতি বছরের ভয়াবহতম, নিহত ৪৫০
ইরানের ইতিহাসে অন্যতম ভয়াবহ ভূমিকম্পে সাড়ে চারশরও বেশী মানুষ নিহত এবং ৭ হাজারেরও বেশি মানুষ আহত হবার পর এখন সেখানে উদ্ধার অভিযান চলছে।

ভেঙে পড়া ভবনের নীচে বা ধ্বংসস্তুপের ভেতর কোনো মানুষ চাপা পড়ে আছে কিনা সেটিই এখন সবার আগে খতিয়ে দেখছে উদ্ধারকারী দলগুলো। খবর বিবিসির।

এ বছর পৃথিবীতে যত ভূমিকম্প হয়েছে তার মধ্যে ভয়াবহতম বলে বিবেচনা করা হচ্ছে ইরান-ইরাক সীমান্তে ঘটে যাওয়া এই ভূমিকম্পটিকে। সোমবারের এই ভূমিকম্পে যত মানুষ নিহত হয়েছে তাদের বেশিরভাগই ইরানের সীমান্ত থেকে মাত্র দশ মাইল দূরে অবস্থিত পশ্চিমাঞ্চলের শহর সারপোল-এ-জাহাব এবং কেরমানশাহ প্রদেশের বাসিন্দা।

সারপোল-এ-জাহাব শহরের প্রধান হাসপাতালটিও ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় আহতদের চিকিৎসা দিতে এটি হিমশিম খাচ্ছে বলে ইরানের রাষ্ট্রীয় টিভির খবরে বলা হয়েছে। ভূমিকম্পের পর ব্যাপক ভূমিধ্বস হওয়ায় উদ্ধার কাজে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হচ্ছে এবং গ্রামীন এলাকায় পৌঁছুতে উদ্ধারকারীদের বেগ পেতে হচ্ছে।

ভূমিকম্পে একটি বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সেটি হয়তো যে কোনো সময় ভেঙে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে এবং বাঁধের আশপাশে বসবাসরত মানুষদেরকে অন্যত্র সরে যেতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে । নানান জায়গায় বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। আর প্রচুর ভবন ভেঙে পড়ায় শহরের অসংখ্য মানুষ ঠান্ডার মধ্যে পার্কে ও রাস্তায় খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছে।

একটি ত্রাণ সংস্থা জানাচ্ছে, ভূমিকম্পের পর অন্তত ৭০ হাজার মানুষ এখন আশ্রয়প্রার্থী। ইরানের সরকারি হিসেব জানাচ্ছে, এই ঘটনায় ৪৫০ জন নিহত হয়েছে। নিহতের সেই তালিকায় এমনকি কিছু সৈন্য এবং কিছু সীমান্তরক্ষীও রয়েছে বলে জানিয়েছে, দেশটির আর্মি কমান্ডার-ইন-চিফ।

মন্তব্য

মতামত দিন

জাতীয় পাতার আরো খবর

বড়পুকুরিয়ার কয়লা গায়েব, মামলা করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি কোম্পানি লিমিটেড থেকে কয়লা গায়েব হয়ে যাওয়ার ঘটনায় খনি কর্তৃ . . . বিস্তারিত

বিলুপ্ত আইনে মামলা বা গ্রেপ্তার নয়: হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: বিলুপ্ত হওয়া ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৬ (২) ধারায় মামলা না করতে পুলিশের মহাপরিদর্শকক . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com