রোহিঙ্গাদের এর চেয়ে মানবিক দৃষ্টান্ত আর কী হতে পারে

১১ সেপ্টেম্বর,২০১৭

কাঁধে বেহেশত নিয়ে চলে মানবতার ফেরিওয়ালা। তোমরাইতো শান্তির দূত, সত্যের পতাকাবাহী। লক্ষ শিরোনামেও তোমাদের যথার্থ সম্মান দেয়া সম্ভব হবে না।

নিউজ ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: গত ২৪ আগস্ট মায়ানমারে ‘জাতিগত নির্মূল অভিযানে’রোহিঙ্গা গণহত্যা শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত তিন হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। এছাড়া তিন লাখেরও বেশি মানুষ শরণার্থী হয়ে প্রতিবেশি রাষ্ট্রে প্রবেশ করেছে। এ নারকীয় ঘটনাকে সাম্প্রতিককালের ‘সবচেয়ে বড় মানবিক বিপর্যয়’বলে আখ্যায়িত করেছে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা ও মানবাধিকার সংস্থাগুলো।

রাখাইনের খ্রিস্টান বিশপের মতে, এ পরিস্থিতি ক্রমেই জটিল হয়ে উঠছে। নতুন করে বাড়িঘরে আগুন দিচ্ছে এবং বন জঙ্গলে পালিয়ে থাকা রোহিঙ্গা মুসলিমদের বের করে এনে নৃশংস কায়দায় হত্যা করছে। বৌদ্ধদের হিংস্রতার এমন বহু প্রমাণ পেয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মীরা।

কিন্তু এ পর্যন্ত রোহিঙ্গা মুসলিমদের হিংস্রতার কোনো প্রমাণ কেউ বের করতে পারেনি। বরং রোহিঙ্গা মুসলিমরা যে অধিকতর মানবিক তা তাদের কর্মে ফুটে উঠেছে। তারা পাল্টা আক্রমণ না করে নিজের ভিটেমাটি ছেড়ে ভিনদেশে শরণার্থী হচ্ছেন। বন জঙ্গলে আশ্রয় নিচ্ছেন।

শুধু তাই নয়, নারী-শিশু, বৃদ্ধ পিতা-মাতাকে ফেলে রেখে আত্মরক্ষায় স্বার্থপরের ভূমিকায় অবতীর্ণ হচ্ছেন না তারা। কাদে বহন করে আনছেন বৃদ্ধ পিতামাতা ও শিশুদেরকেও। এতেই প্রমাণিত হয়, রোহিঙ্গা মুসলিমরা কতটা মানবিক। 

উপরোল্লেখিত ছবিতে দেখা যাচ্ছে তারা কতটা কষ্ট করে বৃদ্ধ পিতা-মাতাকে কীভাবে বহন করছেন, এক শিশু অপর শিশুকে কিভাবে বহন করছেন। রোহিঙ্গাদের এর চেয়ে মানবিক দৃষ্টান্ত আর কী হতে পারে।

মন্তব্য

মতামত দিন

জাতীয় পাতার আরো খবর

গণতন্ত্রের জন্য অবাধ সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন খুবই দরকার: ইইউ

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু এবং অংশগ্রহণমূলক দেখতে চায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। ইইউ প . . . বিস্তারিত

ফের সোনার দাম কমেছে

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: এক মাসের ব্যবধানে সব ধরনের সোনার দাম ভরিতে এক হাজার ১৬৬ টাকা কমেছে। আন্তর্জাতিক বাজারে দাম . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com