বাংলাদেশে রোহিঙ্গা প্রবেশ তীব্র আকারে বেড়েছে: জাতিসংঘ

০৯ জানুয়ারি,২০১৭

নিউজ ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: মায়ানমার থেকে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা মুসলিমদের প্রবেশের সংখ্যা সম্প্রতি সময়ে তীব্র আকারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

জাতিসংঘ বলছে, ‘শুধুমাত্র গত সপ্তাহেই ২২,০০০ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে, যার ফলে রাখাইন রাজ্যের সাম্প্রতিক সহিংসতায় বাংলাদেশে মোট রোহিঙ্গা প্রবেশের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৫ হাজারে’।

প্রায় তিন মাস আগে এই সঙ্কটের সূত্রপাত হয়। রাখাইন রাজ্যের উত্তরাঞ্চল এখনো সামরিক এলাকা হিসেবে সাধারণের জন্য বন্ধ রয়েছে। বার্মিজ সেনাবাহিনী বলছে তারা সশস্ত্র জঙ্গিদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে। তবে ব্যাপকভাবে অভিযোগ রয়েছে যে তারা সাধারণ রোহিঙ্গাদের হত্যা এবং ধর্ষণ করছে।

সাংবাদিক জোনাহ ফিশার বলছেন, ‘হঠাৎ করে কেনো রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাড়ি দেয়ার সংখ্যা বেড়েছে তা স্পষ্ট নয়। তবে বার্মিজ সামরিক বাহিনী সেখানে এখনো নিয়মিতভাবে নির্যাতন চালাচ্ছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। এমনও হতে পারে যে সেখানকার মানুষ এখন খাদ্য সঙ্কটে পড়েছে।

বার্মিজ কর্তৃপক্ষ আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থাগুলোকে রাখাইন রাজ্যের স্পর্শকাতর স্থানগুলোতে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। যার ফলে যে প্রায় এক লক্ষ রোহিঙ্গা এর আগে নিয়মিত ত্রাণ পেত, তাদেরকে এখন কোনো রকম সাহায্য দেয়া যাচ্ছে না।

সাধারণ মানুষের ওপর যে বার্মিজ সেনারা নির্যাতন চালিয়ে আসছে তা বরাবরই অস্বীকার করেছে দেশটির সরকার। তবে কেনো এত মানুষ দেশ ছেড়ে পালিয়েছে সে বিষয়ে তারা কোনো ব্যখ্যা দেয়নি।

এরই মধ্যে মায়ানমারের বিষয়ে জাতিসংঘের বিশেষ দূত, ইয়াংহি লি মায়ানমারে এসে পৌছেছেন। নির্যাতনের অভিযোগ তদন্তের জন্য তিনি সেখানে ১২ দিন অবস্থান করবেন।

সূত্র: বিবিসি

মন্তব্য

মতামত দিন

জাতীয় পাতার আরো খবর

জুবায়ের-নার্গিস-নিয়ামতের ভেজা চোখের অনিশ্চিত রোহিঙ্গা জীবন

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: টিন শেডের একটি ঘরে বিষণ্ণ মনে বসে আছে জুবায়ের - বয়স ১১/১২ বছরের মতো হবে। কেমন আছো? জানতে চাইতে . . . বিস্তারিত

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আইন অমান্য করায় ১১ বিদেশি আটক

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনকক্সবাজার: আইন অমান্য করায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ১১ বিদেশি এনজিও কর্মীকে আটক করেছে র‌্যাব। . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com