সর্বশেষ সংবাদ: |
  • পুনঃতফসিলের প্রজ্ঞাপন জারি করল নির্বাচন কমিশন
  • ঐক্যফ্রন্টের দাবির মুখে নির্বাচন পেছাল ইসি, নতুন সিডিউলে ৩০ ডিসেম্বর ভোট
  • সরকারের নির্দেশে নির্বাচন মাত্র এক সপ্তাহ পিছিয়েছে নির্বাচন কমিশন: রিজভী
  • যুক্তফ্রন্টের মহাজোটে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি: কাদের

দশ বছরের মধ্যে দরিদ্রমুক্ত হবে দেশ: অর্থমন্ত্রী

২১ অক্টোবর,২০১৮

দশ বছরের মধ্যে দরিদ্রমুক্ত হবে দেশ: অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, আগামী দশ বছরের মধ্যে দেশ দরিদ্রমুক্ত হবে। সেলক্ষ্যে সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

রবিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতা পরবর্তীতে দেশে দারিদ্রের হার ছিল ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ। এখন তা কমে ২০ শতাংশে এসেছে। ফলে দেশে এখনও ৩ কোটি মানুষ দরিদ্র আছে। যার মধ্যে ১ কোটি হতদরিদ্র।

তিনি বলেন, দেশে প্রতিবছরে ২ শতাংশ হারে দারিদ্র কমছে। সে হিসেবে আগামী ১০ বছরের মধ্যে দেশে দারিদ্রের হার শূণ্যের কোঠায় চলে আসবে।তবে তার জন্য আমাদের উন্নয়ন পরিকল্পনা ও যথাযথ উৎপাদনমুখী কার্যক্রমের উপর গুরুত্ব দিতে হবে। বর্তমান সরকার সে কাজটিই করছে। তাই বলা যায় আগামী ১০ বছরে দেশে দারিদ্র নির্মুল হয়ে যাবে।

পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) আয়োজিত ‘ বাংলাদেশ কিশোর-কিশোরী সম্মেলন- ২০১৮’ শীর্ষক এ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন পিকেএসএফ সভাপতি কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। এ সময় পিকেএসফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল করিমসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পিকেএসএফ সভাপতি কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, মানুষের জীবনের গুনগতমানের উন্নয়নকে বিবেচনায় রেখে মানব মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় উপযু্ক্ত কর্মকান্ড পরিচালনার মাধ্যমে বর্তমানে পিকেএসএফ একটি সফল মানব-কেন্দ্রিক উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরিত হয়েছে। এর কর্মপরিধি বর্তমান সরকারের চলমান ‘রূপকল্প-২০২১’ এবং ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়নে কার্যকর ভূমিকা রাখছে।

পিকেএসফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল করিম বলেন, শিশু-কিশোর ও তরণদের উন্নত সাংস্কৃতিক মূল্যবোঘের বিকাশও ক্রীড়ামনস্ক করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া কর্মসূচি পরিচালনা করছে পিকেএসএফ। যার ধারাবাহিকতায় আজকের এ বাংলাদেশ কিশোর-কিশোরী সম্মেলন- ২০১৮ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এতে দেশব্যাপী সব উপজেলা, থানা এবং পরবর্তীতে জেলা পর্যাযে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য কিশোর-কিশোরী বাছাই করা হয়। দেশব্যাপী ১১ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১ লাখ শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।এখান থেকে ৭১০ জন কিশোর-কিশোরী পিকেএসএফের বিভিন্ন উ্ননয়ন কর্মকান্ডে শুভেচ্ছা দূত হিসেবে কাজ করবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, সম্মানিত অতিথি ছিলেন পিকেএসএফের সদস্য নাজনীন সুলতানা, স্বাগত বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল করিম।

মন্তব্য

মতামত দিন

অর্থনীতি পাতার আরো খবর

আদমজীতে পোশাক শ্রমিক ও পুলিশের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, আহত অর্ধশত

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএননারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী ইপিজেডের রফতানিমুখী একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বক . . . বিস্তারিত

সক্ষমতা সূচকে একধাপ পেছালো বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের বিচারে গত এক বছরে প্রতিযোগিতার সক্ষমতায় বাংলাদেশের কিছুটা উন্নতি . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com