সরকার পোশাক খাত নিয়ে ‘টম অ্যান্ড জেরি’ খেলছে: সিদ্দিকুর

০৯ জুন,২০১৮

সরকার পোশাক খাত নিয়ে ‘টম অ্যান্ড জেরি’ খেলছে: সিদ্দিকুর

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: বাংলাদেশের তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেছেন, সরকার পোশাক খাত নিয়ে ‘টম অ্যান্ড জেরি’ খেলছে।

তিনি বলেন, ‘সবাই পোশাক খাত ভালো বাসেন, তাই টম অ্যান্ড জেরি খেলেন’।

শনিবার (৯ জুন) রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বিজিএমইএ ভবনে প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে বিজিএমইএ’র সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান এসব কথা বলেন। তিনি লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, প্রত্যেক বছর বাজেট ঘোষণার সময় পোশাক খাতের কর বৃদ্ধি করা হয়। পরে পোশাকশিল্প মালিকেরা সরকারের উচ্চপর্যায়ে দেন দরবার করে সেসব কমিয়ে নেন। কেন এমনটা হচ্ছে, সেই বিষয়ে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের প্রশ্নের জবাবে বিজিএমইএর সভাপতি কথাটি বলেন।

আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে পোশাক খাতের করপোরেট কর ১২ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি করে ১৫ শতাংশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এছাড়া নতুন করে কোনো কর না দেওয়ায় পোশাক রপ্তানিতে উৎসে কর দশমিক ৭০ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ১ শতাংশ হয়ে যাচ্ছে।

তবে কর বৃদ্ধি নিয়ে মোটেই চিন্তিত নন পোশাকশিল্পের মালিকেরা। বিজিএমইএর সভাপতি বলছেন, সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে কথা বলে করপোরেট কর ও উৎসে কর কমিয়ে আনবেন।

বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ব্যাংক খাতের করপোরেট কর কমানো হয়েছে। কিন্তু যে খাতে সবচেয়ে বেশি কর্মসংস্থান হচ্ছে সেই পোশাক খাতের করপোরেট কর বাড়ানো হয়েছে। আমরা মনে করি, করপোরেট কর বাড়ানোর ফলে পোশাকশিল্পের উদ্যোক্তারা নিরুৎসাহিত হবেন। সরকারের কাছে আমাদের অনুরোধ, পোশাকশিল্পে করপোরেট করহার ১০ শতাংশ নির্ধারণের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করুন।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ‘পোশাকশিল্প থেকে আমাদের একান্ত অনুরোধ ছিল, বর্তমান পরিস্থিতিতে খাতটির সংকটময় পরিস্থিতি বিবেচনা করে আগামী তিন বছরের জন্য পোশাক রপ্তানিতে উৎসে কর সম্পূর্ণভাবে প্রত্যাহার করা হোক।

বাজেটে সুস্পষ্ট দিকনির্দেশনা না থাকায় বিদ্যমান আয়কর অধ্যাদেশের ৫৩ (বিবি) ধারায় রপ্তানির উৎসে কর স্বয়ংক্রিয়ভাবে ১ শতাংশ হারে নির্ধারিত হয়েছে। প্রতিবছরই বাজেট ঘোষণায় উৎসে কর ১ শতাংশ হারে নির্ধারণ করা হলেও পরবর্তী সময় আমরা সরকারের উচ্চপর্যায়ের সঙ্গে আলোচনা করে তা কমিয়ে আনি।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, রপ্তানির ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, প্রত্যক্ষ রপ্তানিকারকের কাছ থেকে উৎসে কর কাটা হচ্ছে। সেই সঙ্গে একই রপ্তানির ঋণপত্রের বিপরীতে প্রচ্ছন্ন রপ্তানিকারকদের যেমন-সুতা, কাপড়, এক্সেসরিজ সরবরাহকারীদের থেকেও একই হারে উৎসে কর কর্তন করা হচ্ছে। এটি কোনোভাবেই যুক্তিসংগত নয়।

বিজিএমইএর সভাপতি বলেন, দেশের অর্থনীতির সঙ্গে সংগতি রেখে বড় বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। তবে বাজেট বাস্তবায়নে মনোযোগী হতে হবে। না হলে ২০৩০ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের দেশ হওয়া সম্ভব না।

উল্লেখ্য, টম অ্যান্ড জেরি হচ্ছে হলিউডের মেট্রো গোল্ডউইন মেয়ার স্টুডিওর তৈরি ও বর্তমানে হ্যানা বার্বেরা স্টুডিওতে তৈরি জনপ্রিয় কার্টুন। এতে টম একটি বিড়াল ও জেরি একটি ছোট ইঁদুর। তাদের নানা রকম দুষ্টুমি এই কার্টুনের প্রধান আকর্ষণ।

মন্তব্য

মতামত দিন

অর্থনীতি পাতার আরো খবর

ব্যাংক ঋণ ও আমানতের সুদ কমালে কার লাভ?

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: বাংলাদেশে ব্যাংক ঋণ ও আমানতের সুদের হার এক অঙ্কে নামিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকারি ও বেসরকার . . . বিস্তারিত

ইসলামী বন্ড চালু করার ইঙ্গিত দিয়েছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: বাংলাদেশে শরিয়াভিত্তিক ইসলামী বন্ড চালুর বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করছে সরকার। প্রস্তাবিত বাজেটও . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com