এনবিআরের নতুন চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া

০৩ জানুয়ারি,২০১৮

এনবিআরের নতুন চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: শিল্প মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। তিনি মো. নজিবুর রহমানের স্থলাভিষিক্ত হলেন।

বুধবার দুই বছরের চুক্তিতে এনবিআর চেয়ারম্যান ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব পদে নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে অর্থনীতিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করনে মোশাররফ। তার বাড়ি নরসিংদী।

মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া চাকরির মেয়াদ শেষে অবসরে যাওয়ার পর আবার নিয়োগ পেলেন। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব নজিবুর গত ৩১ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবে হিসেবে নিয়োগ পান।

সিনিয়র সহকারী সচিব মুহাম্মদ আবদুল লতিফের সই করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সঙ্গে কর্ম-সম্পর্ক পরিত্যাগের শর্তে মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াকে অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব ও এনবিআরের চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হলো। তার দায়িত্ব পালনের মেয়াদ দুই বছর।

২০১৬ সালের ৩০ জুন অবসরোত্তর ছুটিতে (পিআরএল) যাওয়ার কথা ছিল মোশাররফ হোসেনের। এর একদিন আগে ২৯ জুন তার পিআরএল বাতিল করে এক বছরের চুক্তিতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব নিয়োগ দেয় সরকার।

১৯৮১ সালের বিসিএস ব্যাচের কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন ২০১০ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি সেতু বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ পান। একই বছরের ২৯ জুলাই পদোন্নতি পেয়ে সচিব হন তিনি।

২০১৪ সালের ২৬ অক্টোবর শিল্প সচিব নিয়োগ পেয়ে ২০১৬ সালের ১১ এপ্রিল জ্যেষ্ঠ সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান মোশাররফ।

এর আগে তিনি বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান এবং প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের সদস্যের দায়িত্বে ছিলেন।

২০১৪ সালে পদ্মা সেতু নির্মাণে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি সই করে সরকার। গত মার্চে নির্মাণকাজ শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। পদ্মা সেতুর নদীর শাসনের দায়িত্ব রয়েছে সিনো হাইড্রো করপোরেশন। চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানি মূল সেতুর নির্মাণকাজ করছে।

সম্ভাব্য দুর্নীতির অভিযোগ এনে ২০১১ সালে পদ্মা সেতুর অর্থায়ন থেকে সরে যায় বিশ্বব্যাংক। বাংলাদেশ সরকারও বিশ্বব্যাংককে না বলে দেয়। পরে নিজস্ব অর্থায়নে দেশের সর্ববৃহৎ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের পরিকল্পনা নেয় সরকার।

বিশ্বব্যাংকের মতে, পদ্মা সেতু নিয়ে দুর্নীতি ষড়যন্ত্রে যাদের নাম এসেছিল তাদের মধ্যে মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া ছিলেন। পদ্মা সেতুতে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ন নিয়ে টানাপড়েনের মধ্যে দুদকের মামলায় গ্রেপ্তারের পর ওএসডিও হতে হয়েছিল এই কর্মকর্তাকে। পরে দুদক জানায়, দুর্নীতির কোনো প্রমাণ মেলেনি। এছাড়া কানাডার একটি আদালত দুর্নীতি কোনো প্রমাণ না পেয়ে সংশ্লিষ্টদের খালাস দেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

অর্থনীতি পাতার আরো খবর

সরকারি আট ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: সরকারি আট ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করেছে ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটি। এ বিষয়ে একটি তদন্ত . . . বিস্তারিত

নো নো নো, জাস্ট রাবিশ: অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) এর মতে, ২০১৭ সাল ছিল ব্যাংক খাতের কেলেঙ্কারির বছর। এবিষয়ে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com