বিদ্যুতের দাম না বাড়ালেও চলতো: ম তামিম

৩০ নভেম্বর,২০১৭

ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হবে বিদ্যুতের প্রতি ইউনিটে ৩৫ পয়সা মূল্যবৃদ্ধি

নিউজ ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: বাংলাদেশে গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার আধাবেলা হরতাল পালন করছে কমিউনিস্ট পার্টি, বাসদসহ বামপন্থী রাজনৈতিক দলগুলো। তাদের সমর্থন দিয়েছে অন্যতম বিরোধী দল বিএনপি।

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধিকে সরকারের পক্ষ থেকে ‘সহনীয়’ বলা হলেও জ্বালানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ম তামিম মনে করছেন, এই মূল্যবৃদ্ধি না করলেও চলতো। খবর বিবিসির।

অধ্যাপক তামিম বলেন, বিদ্যুতের দাম না বাড়িয়ে উৎপাদনে ব্যবহৃত জ্বালানি তেলের দাম কমানোর সুযোগ ছিল সরকারের সামনে। তিনি মনে করেন, মূলত অর্থনৈতিক কারণেই বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

এক দশক আগেও বাংলাদেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ছিল মূলত গ্যাসভিত্তিক, তবে ২০০৭ সাল থেকে গ্যাসের দাম বাড়ায় তেলভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদনের দিকে ঝুঁকে পড়ে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশে বর্তমানে ৩০ শতাংশের বেশী বিদ্যুৎ জ্বালানি তেল থেকে উৎপাদিত হয়। যার মধ্যে ৭০০-৮০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হয় ডিজেল দিয়ে।

ড. তামিম বলেন, বাংলাদেশে বিশ্ববাজারের চেয়ে বেশী দামে ডিজেল বিক্রি হয়। বিদ্যুতের দাম না বাড়িয়ে ডিজেলের দাম কমিয়ে সমন্বয় করার সুযোগ ছিল সরকারের সামনে।

তবে এর আগে সরকারের জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহি চৌধুরী ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হতে যাওয়া মূল্যবৃদ্ধিকে ‘খুবই সামান্য ও মামুলি ব্যাপার’ বলে মন্তব্য করেছেন। বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদও মনে করেন এই মূল্যবৃদ্ধিতে গ্রাহক পর্যায়ে যে প্রভাব পড়বে তা সহনীয়।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রর মূল কাজের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রর মূল কাজের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্র শেখ হাসিনা। পাবনা শহরের অদূরেই ঈশ্বরদী উপজেলার রূপপুরের প্রকল্পটিতে তিনি আজ বৃহস্পতিবার পারমাণবিক চুল্লী স্থাপনের জন্য প্রথম ঢালাইয়ের মাধ্যমে মূল নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন।

উল্লেখ্য, নানা প্রক্রিয়াগত জটিলতা পেরিয়ে অবশেষে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে টেকসই বিদ্যুৎ উৎপাদনের বহুল প্রত্যাশিত প্রকল্প-রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, দীর্ঘমেয়াদে স্বল্প খরচে বিদ্যুৎ উৎপাদনে রেকর্ড গড়বে প্রকল্পটি। পাবনা শহরের অদূরেই ঈশ্বরদী উপজেলার রূপপুরের মাটিতেই ধাপে-ধাপে এগিয়ে চলেছে দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ।

২০১৩ সালে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের পর বৈজ্ঞানিক বিভিন্ন খুঁটিনাটি দিক পর্যবেক্ষণ ও যাবতীয় সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের পর এরই মধ্যে পারমাণবিক চুল্লি স্থাপনের জন্য পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের অনাপত্তির নির্দেশনা পেয়েছে প্রকল্পটি।

বৃহস্পতিবার প্রকল্পটিতে রি-অ্যাক্টর স্থাপনের জন্য মূল নির্মাণ কাজ- অর্থাৎ ফার্ষ্ট কনক্রিট পৌরিং ডেবা এফসিডি করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মন্ত্রণালয় বলছে প্রকল্পটির মাধ্যমে বাংলাদেশ বৈশ্বিকভাবে ৩২তম সদস্য দেশ হিসেবে নিউক্লিয়ার ক্লাবে প্রবেশ করবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিজ্ঞান এ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় ভারপ্রাপ্ত সচিব আনোয়ার হোসেন বলেন, অন্যান্য বিদ্যুৎ কেন্দ্রের লাইফ যেখানে সর্বোচ্চ ২৫ বছর হয় সেখানে নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্টের আয় ৬০-৮০ বছর পর্যন্ত হয়।

রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত পারমাণবিক সংস্থা রোসাটম প্রকল্পটিতে কারিগরি ও নির্মাণ সহায়তা দিচ্ছে। পাশাপাশি নিউক্লিয়ার বর্জ্য বা স্পেন্ট ফুয়েল রাশিয়া ফেরত নিতে চুক্তি হওয়ায় পরিবেশগত কোনো ঝুঁকি থাকছে না বলে মত সংশ্লিষ্টদের।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নঈম চৌধুরী বলেন, আমাদের সবারই দেশ প্রেম আছে। সুতরাং আমরা এমন কোনো কাজে হাত দেবনা। যেটা মানুষ, প্রতিবেশী, পরিবেশ কোনটারই ক্ষতি হয়।

আর্থিক বিবেচনায় দেশের সবচেয়ে বড় এই প্রকল্পে ব্যয় হবে ১ লাখ ১৩ হাজার ৯২ কোটি ৯১ লাখ টাকা। যার মধ্যে ৯০ শতাংশ বা ৯১ হাজার ৪০ কোটি টাকা রাশিয়া ঋণ হিসেবে দিলেও, বিপুল পরিমাণ এই অর্থ পরিশোধে দেশ কোনো চাপে পড়বে না বলেন বিজ্ঞান এ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় ভারপ্রাপ্ত সচিব আনোয়ার হোসেন।

পরিকল্পনা অনুযায়ী দুটি ইউনিট থেকে ২০২৩ সাল নাগাদ ২৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব বলে আশা করছে সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য

মতামত দিন

অর্থনীতি পাতার আরো খবর

‘তন্নতন্ন করেও জামায়াত-শিবিরকে ইসলামী ব্যাংকের অর্থায়নের প্রমাণ পাইনি’

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: জামায়াত-শিবিরকে অর্থায়নে ইসলামী ব্যাংক জড়িত থাকার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি উল্লেখ করে ইসলাম . . . বিস্তারিত

পোশাক রপ্তানি কমেছে বেলজিয়ামে

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: ক্রমেই কমে যাচ্ছে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক রপ্তানির অন্যতম বেলজিয়ামের বাজার। বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com