সর্বশেষ সংবাদ: |
  • ব্রিটিশ হাইকমিশনারকে আমাদের উদ্বেগের বিষয়গুলো জানিয়েছি: ড. কামাল
  • দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন নিয়ে সুজনের সংশয়, বিতর্কিত নির্বাচন হলে দেশের তরুণরাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে : বদিউল আলম মজুমদার
  • জিয়া অরফানেজ মামলায় রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল, সাজা স্থগিত ও জামিন চাওয়া হয়েছে, নির্বাচনে বাধা নেই : ব্যারিস্টার কায়সার কামাল
  • বিকল্পধারার চেয়ারম্যান ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরীর সঙ্গে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলার বৈঠক চলছে
  • তারেক রহমানের ভিডিও কনফারেন্স বিএনপির অভ্যন্তরীণ বিষয়

২০ দলীয় জোটে আরো তিনটি দল

০৯ নভেম্বর,২০১৮

২০ দলীয় জোটে আরো তিনটি দল

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটে আরো তিনটি দল যোগ দিয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় দল, পিপলস পার্টি অব বাংলাদেশ ও মাইনোরিটি জনতা পার্টি জোটের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। এতে ২০ দল এখন ২৩ দলীয় জোটে পরিণত হল।

বৃহস্পতিবার গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে রাতে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকের পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানান, সৈয়দ এহসানুল হুদার নেতৃত্বাধীন জাতীয় দল, জননেতা মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়ার মেয়ে রিটা রহমানের নেতৃত্বাধীন পিপলস পার্টি অব বাংলাদেশ এবং সুপ্রীতি কুমার মণ্ডলের নেতৃত্বাধীন মাইনোরিটি জনতা পার্টি আজ আনুষ্ঠানিকভাবে ২০ দলীয় জোটের সঙ্গে যুক্ত হলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) চেয়ারম্যান কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমেদ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জোটনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বোর্ডের চিকিৎসকদের অনুমোদন ব্যতিরেকে কারাগারে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় নিন্দা জানান। তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি, বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা সম্পূর্ণ না করে একটি নির্জন ও পরিত্যক্ত কারাগারে নিয়ে যাওয়া এটা হত্যার ষড়যন্ত্র। আমরা অবিলম্বে তাঁর মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।’

অলি আহমেদ নতুন যোগ দেওয়া তিন দলকে ২০ দলে যোগ দেওয়ায় অভিনন্দন জানান।

জোটের বৈঠকে সাধারণত বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অথবা জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান সভাপতিত্ব করলেও এবার ব্যতিক্রম ঘটেছে তাতেও। অলিকে সভাপতির আসনে বসতে বলে জোট সমন্বয়ক।

গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে জোটের এই বৈঠকে নজরুল ইসলাম খান ছাড়া জাতীয় পার্টি(কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, জামায়াতে ইসলামীর আবদুল হালিম, বিজেপি আন্দালিব রহমান পার্থ, খেলাফত মজলিশের মাওলানা মুহাম্মদ ইসহাক, আহমেদ আবদুল কাদের, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ, জাগপার তাসমিয়া প্রধান, এনডিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান, মুসলিম লীগের এ এইচ এম কামরুজ্জামান খান, পিপলস লীগের গরীবে নেওয়াজ, ইসলামিক পাটির আবু তাহের চৌধুরী, ন্যাপ ভাসানীর আজহারুল ইসলাম , ন্যাপের এমএন শাওন সাদেকী, ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা আবদুল করিম, ডিএলের সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মাওলানা নুর হোসেইন কাসেমী, মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা মহিউদ্দিন ইকরাম প্রমুখ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

ব্যবসায়ীরা রাজনীতিতে এলে অসুবিধা কোথায়?

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: গত কয়েকটি সংসদ নির্বাচনে ব্যবসায়ীদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ ও সংসদ সদস্য হওয়ার প্রবণতা বাড়ছে। এ . . . বিস্তারিত

নয়াপল্টনের সেই হেলমেটধারী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় হেলমেট পরে পুলিশের গাড়ির ওপর উ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com