রায় নিয়ে সরকারের নেতা-মন্ত্রীদের প্রতিক্রিয়া

১০ অক্টোবর,২০১৮

রায় নিয়ে সরকারের নেতা-মন্ত্রীদের প্রতিক্রিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে গ্রেনেড হামলায় ঘটনায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ফাঁসি না হওয়ায় ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও মন্ত্রীরা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

বুধবার ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিনের আদালত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় দেন। রায়ে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড এবং তারেক রহমানসহ ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

রায়ে ‘পুরো সন্তুষ্ট নয়’ আওয়ামী লীগ
রায়ের পর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আমি বলতে চাই, আমরা বিলম্বিত হলেও এই রায়ে অখুশি নই। কিন্তু পুরোপুরি সন্তুষ্ট নই। কারণ এই রায়ে প্ল্যানার এবং মাস্টারমাইন্ডের শাস্তি হওয়া দরকার উচিত ছিল, সর্বোচ্চ শাস্তি, ক্যাপিটাল পানিশমেন্ট’।

রায়ে আমরা সন্তুষ্ট: আইনমন্ত্রী
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। তবে আমরা এ ঘটনার মূল নায়ক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের ফাঁসি হওয়া উচিত ছিল।

বুধবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের কাছে রায়ের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, আমি মনে করি এ ঘটনার মূল নায়ক তারেক রহমান। তাই রায়ে তারেকের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত ছিল।

আইনমন্ত্রী জানান, রায়ের কপি পাওয়ার পর সেটি পর্যালোচনা করে তারেক রহমান, কাজী শাহ মোফাজ্জল হোসেন কায়কোবাদ ও হারিছ চৌধুরীর সাজা ফাঁসিতে বর্ধিত করা যায় কি না, সে জন্য উচ্চআদালতে আপিল করা হবে।

ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে: ইনু
ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় ৪৯ আসামির সাজার রায়ের মধ্য দিয়ে ‘ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে’ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু।

বুধবার রায়ের পর এক বিবৃতিতে সরকারের তথ্যমন্ত্রী ইনু বলেন, ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা হত্যা ছিল ইতিহাসের ঘৃণ্য সুপরিকল্পিত রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড। একটি রাজনৈতিক দলকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার এ হামলা-হত্যাকাণ্ড পরিচালিত হয়েছিল’।

তারেককে দেশে এনে ফাঁসির দাবি ছাত্রলীগের
মামলার রায় ঘোষণার পর দুপুর সোয়া ১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে এক সমাবেশ করে ছাত্রলীগ। সমাবেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বলেন, ‘যে রায় দেওয়া হয়েছে, তাতে আমরা কেউ সন্তুষ্ট নই। আইভি রহমানসহ আওয়ামী লীগের ২৪ নেতাকর্মীকে সেদিন হত্যা করা হয়েছিল। এরপর বিএনপি-জামায়াতের প্রেতাত্মারা মিথ্যা নাটক সাজায়। আমরা ছাত্রসমাজ এ রায়ে সন্তুষ্ট না।’

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

মজিবুর রহমানকে জামায়াত থেকে বহিষ্কার

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ইসলামী ছাত্রশিবিবের সাবেক সভাপতি, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা সদস্য মজ . . . বিস্তারিত

ক্ষমা চাইলেও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলবে: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিষ্টার আবদুর রাজ্জাকের পদত্যাগ নিয়ে এখনই ম . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com