বিএনপি নির্বাচনে আসবে, খালেদা জিয়াও জেলের বাইরে থাকবেন: নাসিম

১১ জুন,২০১৮

বিএনপি নির্বাচনে আসবে, খালেদা জিয়াও জেলের বাইরে থাকবেন: নাসিম

নিউজ ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা:  ‘বিএনপি নির্বাচনে আসবে এবং সে সময়ে খালেদা জিয়াও জেলের বাইরে থাকবেন’ আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

বহুল প্রচারিত একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকার সাথে এক সাক্ষাৎকার কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এসব কথা বলেন।

আপনার এমন আশাবাদটা ব্যক্তিগত কি না? জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, আমার ব্যক্তিগত এবং ১৪ দলের মুখপাত্র হিসেবেও। সব সময় আশা করি, তিনি কারাগারের বাইরে থেকেই নির্বাচনে অংশ নেবেন।

বিএনপিকে নির্বাচনে আনতে কোনো বিশেষ পদক্ষেপ? নাকি আসলে আসবে— এমন প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, না, আমি তা বলি না। পানি ছাড়া মাছ ও ভোট ছাড়া দল বাঁচে না। দু-একটা বাদে সামরিক শাসনেও আমরা ভোট করেছি। ধ্বংসস্তূপ থেকে নতুন করে গড়ে তুলতে ১৯৭৯ সালে পাওয়া ৩৮টি আসন আমাদের দলের উপকারেই এসেছিল। আমি আশা করি, বিএনপি নির্বাচনে আসবে এবং সে সময়ে খালেদা জিয়াও জেলের বাইরে থাকবেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কিন্তু খালেদা জিয়াকে অনুরোধ করেছিলেন। আমাদের নেত্রীর লক্ষ্য ছিল আলোচনার মাধ্যমে নির্বাচনকে সবার কাছে গ্রহণযোগ্য করা। তিনি প্রথা ভেঙে নির্বাচনকালীন সরকারে যোগ দিতে খালেদা জিয়াকে অনুরোধ করেছিলেন।

মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেন, নির্বাচনকালীন সরকারের আমলে জনপ্রশাসন তো নির্বাচন কমিশনের কাছে ন্যস্ত থাকবে। আপনি যেটা বলছেন, সেসব তো সংবিধানেই বলে দেওয়া আছে। সুতরাং নির্বাচন কমিশন নির্বাচনকালে তার সেই ক্ষমতা কতটা ব্যবহার করবে বা করতে পারবে, তার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ নাসিম বলেন,  ২০১৪ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত দেশে যা ঘটেছে, জঙ্গিবাদের যেভাবে উত্থান ঘটেছে, সেসব ঘটনাকে কিন্তু আপনাকে একসঙ্গে মিলিয়ে দেখতে হবে। তারা যখনই কোনো মিটিং-মিছিল করতে গেছে, তখনই একটা সন্দেহ সৃষ্টি হয়েছে। আর সে জন্য তারাই দায়ী। আপনি দেখবেন, বিএনপি এর আগে বড় সভা-সমাবেশ করেছে। ২০১৪-১৫ সালে তাদের জ্বালাও–পোড়াওয়ের কারণে পরিস্থিতি এমন হয়েছে যে কেউ আর কোনো ঝুঁকি নিতে চায় না। আবার এটাও সত্য যে অধিকতর সভা-সমাবেশ করতে পারাটা কিন্তু সাংগঠনিক দক্ষতার ওপরও অনেকটা নির্ভর করে।

মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর মতো মহান নেতা সাড়ে তিন বছর বিরোধী দলের সঙ্গে যেভাবে সদাচরণ করেছিলেন, বিরোধী দল তার কী প্রতিদান দিয়েছিল? তার মৃত্যুর পরে বিরোধী দল কী আচরণ করেছিল? জাতির জনক ও চার নেতা তো তা দেখে যাননি। তারা যদি দেখতেন, তাহলে তারা কষ্ট পেতেন। এমনকি আমরা যাকে শ্রদ্ধা করি, সেই মজলুম জননেতা মাওলানা ভাসানী জিয়াউর রহমানের আমলে কী মন্তব্য করেছিলেন? আজকে অনেকে রং বদলে ফেলেছেন। অনেক কথা বলছেন। আমরা কিন্তু তা ধৈর্যের সঙ্গে মোকাবিলা করেছি। আপনি একবার ভাবুন, এত বড় ঘটনার পরও জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরে আসার পর আমাদের তৎকালীন নেতা আসাদুজ্জামান খানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ নিহত জিয়াউর রহমানের কফিনের প্রতি সম্মান দেখিয়েছিল। ফুল দিয়েছিল। আমি তখন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য। দলের সিদ্ধান্তে আমরা তা করেছিলাম। ভাবুন তো, যেখানে জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম বেনিফিশিয়ারি। ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডে যেখানে তার জড়িত থাকার বিষয়ে আমাদের মনে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। ক্ষমতায় থাকতে আওয়ামী লীগের প্রতি তার আচরণও আমরা দেখেছিলাম। পঁচাত্তরের খুনিদের জিয়া, এরশাদ, খালেদা জিয়া আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

‘তারেককে খালাস দিয়ে বিচারক দেশে থাকতে পারেননি, সিনহাকেও দেশত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে’ 

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘আজকে সয়লা . . . বিস্তারিত

পুলিশের লাঠিপেটায় বাম গণতান্ত্রিক জোটের কর্মসূচি পণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: পুলিশের লাঠিপেটায় পণ্ড হয়ে গেছে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নির্বাচন কমিশন ঘেরাও কর্মসূচি। এ ঘটন . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com