খালেদার জামিন বা দণ্ড মওকুফ নিয়ে দেন-দরবার চলবে না: তথ্যমন্ত্রী

১৫ মে,২০১৮

খালেদার জামিন বা দণ্ড মওকুফ নিয়ে দেন-দরবার চলবে না: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
কুষ্টিয়া: ‘খালেদা জিয়ার জামিন বা দণ্ড মওকুফে রাজনৈতিক কোনো দেন-দরবার চলবে না’ বলে মন্তব্য করেছেন জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

মঙ্গলবার সকালে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে দলীয় নেতা কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে তিনি এ সব কথা বলেন। এসময় জেলা জাসদের সভাপতি আলহাজ্ব গোলাম মহসিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ও উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আলীসহ দলীয় নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ‘সরকার ইলেকশন ইঞ্জিনিয়ারিং করছে’ বিএনপির এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে তথ্যমন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যমের সামনেই ভোট শুরু হয়েছে। তাই নির্বাচন নিয়ে মন্তব্য করার কোনো অবকাশ নেই। নির্বাচন শেষ হলে উভয় প্রার্থীর বিবৃতির প্রেক্ষিতে আলোচনা করা যাবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

আরো পড়ুন...

ধর্মব্যবসায়ীদের ষড়যন্ত্র রুখতে হবে: তথ্যমন্ত্রী
‘দেশের অর্থনীতি সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে নারী শ্রমিকরা। ঘরেবাইরে তারা সমানতালে কাজ করছি। তেঁতুল হুজুর ও তার সমর্থকরা নারী শ্রমিকদের কর্মহীন করতে তৎপর। এইসব ধর্মব্যবসায়ীদের ষড়যন্ত্র রুখতে হবে।জঙ্গিবাদী তেতুল হুজুরদের বাংলাদেশের রাজনীতির বাইরে রাখতে হবে। মে দিবসের অঙ্গীকার শ্রমিকের ন্যুনতম মজুরি নিশ্চিত করতে হবে’ বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু।

মঙ্গলবার রাজধানীর জিরো পয়েন্ট সংলগ্ন জাসদের কার্যালয়ের সমানে জাতীয় শ্রমিক জোট আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখন জাতীয় শ্রমিক জোটের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নাইমুল আহসান জুয়েল, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রণব বর্মণ জাতীয় নারী জোটের সভাপতি আফরোজ হক রিনা, জাতীয় যুব জোটের সাধারণ সম্পাদক শরীফুল কবীর স্বপন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের (জাসদ) সভাপতি আহসান হাবিব শামীম এবং জাতীয় শ্রমিক জোটের কেন্দ্রীয় নেতা জাকিরুল হক টিটন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, শ্রমিকদের একটি বড় অংশ নারী শ্রমিক। তাদের কাজের ক্ষেত্রে কর্ম পরিবেশে যৌন হয়রানি মুক্ত কারখানা গড়ে তুলতে হবে। পথে ঘাটে নারী শ্রমিকের যাতে অবাধে চলাফেরা করতে পারে , কোন প্রকার যৌন হেনস্তার শিকার না হয়, সেজন্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

তিনি আরো বলেন, শ্রমিকের সমস্যা, নিরাপত্তা, আবাসন ও মর্যাদা পূর্ণ মজুরি, নূন্যতম মজুরি নিশ্চিত করতে হবে। তাহলেই এদেশে শিল্প কারখানা ভালো চলবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও বাড়বে। শ্রমিকের নূন্যতম মজুরি ১৮ হাজার টাকা জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) সমর্থন করে। ৪ লাখ কোটি টাকা বাজেটে ১৮ হাজার টাকা কিছুই না।

জাতীয় শ্রমিক জোটের সভাপতি ও জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আক্তার বলেন, শ্রমিকদের মজুরি সমতা নারী পুরুষ শ্রমিকের বৈষম্য দূর করতে হবে এবং তাদের জন্য আবাসন ব্যবস্থা করতে হবে। বর্তমান সরকারের শ্লোগান শ্রমিক মালিক ভাই ভাই, সোনার বাংলা গড়তে চাই। এই শ্লোগান বাস্তবায়ন করতে হলে ন্যুনতম মজুরি বাস্তবায়ন করতে হবে।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

গোলাম মোর্তজা এনডিপির নতুন চেয়ারম্যান, ২০ দলীয় জোটে থাকার ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: খন্দকার গোলাম মোর্তজাকে চেয়ারম্যান পদ থেকে বহিষ্কার করে মো. আবদুল মোকাদ্দিমকে চেয়ারম্যান ম . . . বিস্তারিত

বিএনপি নৈতিক অবস্থান থেকে বিচ্যুত, তাই আমরা ২০ দল ছেড়েছি: জেবেল

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি বলেছেন, ‘এক এগারোর কুশীল . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com