এমন নির্বাচন সরকার হতে দেবে না যাতে গদি চলে যেতে পারে: মান্না

১৫ এপ্রিল,২০১৮

এমন নির্বাচন সরকার হতে দেবে না যাতে গদি চলে যেতে পারে: মান্না

নিজস্ব প্রতিনিধি
আরটিএনএন
ঢাকা:  ‘বোঝা যায় কী রকম নির্বাচন তারা (সরকার) করতে চায়। এক কথায় যেরকম করে বাজারে কথা চালু আছে, এমন কোনো নির্বাচন বর্তমান সরকার হতে দেবে না যাতে তাদের গদি চলে যেতে পারে।’ বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না।

রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক গোলটেবিল আলোচনায় এসব কথা বলেন মাহমুদুর রহমান মান্না। আদর্শ নাগরিক আন্দোলন ওই গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করে। কোনো প্রতিষ্ঠানের অনিয়মের কোনো রকমের প্রতিবাদ নেই বলেও উল্লেখ করেন ব্যরিস্টার মইনুল হোসেন।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘যারা নির্বাচনটা করবেন তারা এ রকম একটা আচরণ করছেন, যে নির্বাচনটা আমাদের ব্যাপার না নির্বাচন কমিশনের ব্যাপার। আর নির্বাচন কমিশন বলছে বিএনপি আসে কি না আসে ওটা দেখা আমার দায়িত্ব না।’

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেছেন, ‘দেশে এমন এক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে যে সরকারি কর্মকর্তা থেকে শুরু করে সবাই চাকরি রক্ষায় ব্যস্ত।’

ভয়ের কারণে কথা বলতে পারছেন না, চুপ করে থাকেন: মান্না
‘যদি মনে হয়, ভয়ের কারণে কথা বলতে পারছেন না, লিখতে পারছেন না, চুপ করে থাকেন, দালালি করার তো দরকার নেই। সাহিত্য ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সাক্ষী হয়ে থাকবে’ বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে নিজের লেখা দ্বিতীয় উপন্যাস ‘আটকে পড়া শব্দরাজি’ নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠানে মাহমুদুর রহমান মান্না এসব কথা বলেন। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রকাশিত হয় মাহমুদুর রহমান মান্নার দ্বিতীয় উপন্যাস ‘আটকে পড়া শব্দরাজি’। ১৮৪ পৃষ্ঠার এই বইটি প্রকাশ করেছে অনন্যা প্রকাশনী।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘এই বইটাতে আমি এনেছি বাংলাদেশের ছাত্র রাজনীতির অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ।’

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘অনেক রাজনীতিবিদ আছেন লিখতে পারেন অথচ লেখেন না। যারা লেখেন তাদের সংখ্যাটা খুব কম। তবে আমি মনে করি, রাজনীতিবিদদের লেখা উচিত। কারণ তারা মানুষের অনেক কাছাকাছি যেতে পারেন। রাজনীতিবিদদের মানুষের সঙ্গে দেখার সুযোগ হয়, মেশার সুযোগ হয়, তারা দেখেন ঠিকই, কিন্তু লেখেন না।’

অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আসিফ নজরুল বলেন, ‘দেশে যারা বাক্স্বাধীনতা, প্রগতিশীলতার কথা বলেন, মুক্তচিন্তার কথা বলেন, লক্ষ করে দেখবেন কেউ কিন্তু এর প্রতিবাদ করেননি। আমার মনে হয়, পৃথিবীর ইতিহাসে এটা একটা বিরল ঘটনা, যে আদালত বলে দেয় যে উপন্যাসটা ওইভাবে লেখেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘যারা সুপারস্টার লেখক আছেন, বিভিন্ন আলোচনায় যান, আমাদের সময়ে যারা রাজনৈতিক উপন্যাস লেখেন, তাদের মধ্যে একটা প্রবণতা প্রচণ্ড কাজ করে। মনে হয় যেন তারা চিন্তা করেন, বইটা লিখে একটা প্রগতিশীল ব্যাচ পেতে চাই, কোনো এক নেত্রীর মন জয় করতে চাই। কোনো একটা পুরস্কার পেতে চাই। এ ধরনের প্রবণতা তাদের কাজ করে, সততা থাকে না। রাজনৈতিক হাওয়া বুঝে উপন্যাস লেখার প্রবণতা চলে আসছে।’

আলোচনায় কবি আবদুল হাই শিকদার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক গওহার নঈম ওয়ারা, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এ কে এম শাহনেওয়াজ, অনন্যার প্রকাশনীর প্রকাশক মনিরুল হক প্রমুখ বক্তব্য দেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

বিএনপির সমাবেশের দিন আমরা দেখবো কারা মাঠে নামবে: নাসিম

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: রাজধানী দখলে রাখার ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন ১৪ দলীয় জোট। তাদের এই ঘোষ . . . বিস্তারিত

বিবিসি বাংলাকে ঠিক কী বলেছিলেন ড. কামাল

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: বাংলাদেশে নির্বাচনকে সামনে রেখে একটি বিরোধী রাজনৈতিক জোট গঠনের মূল উদ্যোক্তাদের একজন ড. কামাল হো . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com