গণবিরোধী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বুধবার বিএনপির কর্মসূচি

১১ ডিসেম্বর,২০১৭

গণবিরোধী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বুধবার বিএনপির কর্মসূচি

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: গ্যাস বিদ্যুৎ ও দ্রব্যমূল্যে সরকারের গণবিরোধী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি।

সোমবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ ঘোষণা দেন।

রিজভী বলেন, চাল-ডালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যবৃদ্ধি, সিটি করপোরেশনসহ পৌরসভার ট্যাক্স এবং গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আগামী ১৩ ডিসেম্বর সারাদেশে জেলা ও মহানগরে বিএনপির প্রতিবাদ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে। তবে রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনী এলাকা কর্মসূচির আওতামুক্ত থাকবে।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনি এতো বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছেন তাহলে সারাদেশে লোডশেডিং হচ্ছে কেন। আসলে বিদুৎতের উৎপাদন বাড়েনি, ভারী হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর আত্মীয়-স্বজনদের পকেট।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ফজলুল হক মিলন, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, মাহবুবে রহমান শামীম, আব্দুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার প্রতিবাদে বিএনপির নতুন কর্মসূচি ঘোষণা
চট্রগ্রাম: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার প্রতিবাদে কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি। ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল বৃহস্পতিবার সারাদেশে জেলা শহরে এবং শনিবার রাজধানীর থানা পর্যায়ে প্রতিবাদ সভা কর্মসূচি পালন করা হবে।

বুধবার দুপুরে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, বিএনপি কোনো সংঘাতে জড়াতে চায় না, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সংলাপ প্রয়োজন।

সংলাপ সম্মেলনে তিনি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম জিয়া কক্সবাজার যাওয়ার পথে গাড়িবহরে হামলা এবং আসার পথে বোমাবাজি ও দুটি বাসে আগুন দেয়ার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে এর প্রতিবাদে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন তিনি।

জনগণের হাড়গোড় চিবিয়ে আ.লীগ ভয়ঙ্কর নরপিশাচে পরিণত হয়েছে: খালেদা
এর আগে মঙ্গলবার রাতে এক বিবৃতিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেন, সরকারের বর্বরতম পরিকল্পনারই বোমা নিক্ষেপসহ দুুটি গাড়ীতে আগুন লাগিয়ে সন্ত্রাসীরা আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি করেছে।

গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে খালেদা জিয়া বলেন, আজও আমার গাড়ীবহর ঢাকা যাবার পথে ফেনী শহর অতিক্রম করার সময় পেট্রোল বোমা নিক্ষেপসহ দুুটি গাড়ীতে আগুন লাগিয়ে সন্ত্রাসী আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি করেছে, এটা সরকারের বর্বরতম পরিকল্পনারই অংশ।

পুনরায় আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হামলাকে কাপুরুষোচিত আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ কোনো আধুনিক রাজনৈতিক দল নয়, এটি সন্ত্রাসীদের আখড়া। এরা সবসময় রক্ততৃষ্ণায় কাতর থাকে। এই দলটি দেশকে হত্যা, দখল, হাঙ্গামা, রক্তারক্তি ও খুনোখুনীতে ভরিয়ে দিতে চাচ্ছে। এই দলটির পরতে পরতে জড়িয়ে আছে মানবাত্মার অবমাননার বিভিন্ন দিক।

জনগণের হাড়গোড় চিবিয়ে আওয়ামী লীগ ভয়ঙ্কর নরপিশাচে পরিণত হয়েছে মন্তব্য করে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, এই পিশাচদের দোর্দন্ড পদচারণার প্রধান কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে ফেনী জেলাকে। ফেনী শহর এখন বিবেকবর্জিত সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য- বলে উল্লেখ করে তিনি।

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের মানবিক বিপর্যয়ে সহায়তা দিতে বাধা দানের উদ্দেশ্যে তারা আমার গাড়ী বহরে চৈতন্যহীন বর্বর আক্রমণ চালাতে দ্বিধা করেনি। শুধু অসংখ্য গাড়ী কিংবা দলের নেতাকর্মীদেরকে আঘাত করা নয়, তারা দায়িত্বরত গণমাধ্যমে সাংবাদিকদের ওপরও নৃশংস আঘাত করেছে।

বেগম জিয়া আজ গাড়ীবহরে হামলার ঘটনায় জড়িত দুস্কৃতিদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আহবান জানান।

টেস্ট কেস হিসেবে বিএনপি দুইটি বাসে আগুন দিয়েছে: ওবায়দুল কাদের
অন্যদিকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজশাহী সার্কিট হাউজে সাংবাদিকের এক প্রশ্নে জবাবে ফেনীতে বাসে আগুন ও বোমাবাজির ঘটনার ব্যাপারে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, আগুন দিয়ে বাস পোড়ানো বিএনপির পুরোনো অভ্যাস। ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বয়কট করে সারাদেশে আগুন সন্ত্রাস ও তাণ্ডব চালিয়েছে। সে স্মৃতি এখনো মানুষের মনে আছে। মানুষ ভুলে যায়নি।

সেতুমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া ঢাকা থেকে কক্সবাজার যেতে ফেনিতে একটি ঘটনা ঘটালেন, নিজেরা নিজেদের উপর হামলা করে আওয়ামী লীগের ঘাড়ে, সরকারের ঘাড়ে দোষ চাপালেন, একটি অপপ্রচারের সুচনা করলেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার গাড়িতে কোনো হামলা হয়নি। তিনি অক্ষত রয়েছেন। তার কোনো নেতাও আহত হননি। শুধু আক্রান্ত হলো সাংবাদিকরা। এ থেকেই বোঝা যায় তাদের উদ্দেশ্য। তাদের উদ্দেশ্য ছিল একটা বড় নিউজ করতে হবে। কোনো নিউজ তো হচ্ছিল না, এ একটা নিউজ করে দেখানো এবং সরকারের ঘাড়ে দোষ চাপানো। এটাই ছিল তাদের উদ্যেশ্য।

তিনি বলেন, ফেরার পথে ফেনীর আগে খালেদা জিয়ার গাড়ি পার হয়ে অনেক দুর পাওয়ার পর পিছনে দাঁড়িয়ে থাকা দুইটি বাসে বিএনপির নেতাকর্মীরা নিজেরাই পাউডার ঢেলে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। দেশে আবারো আগুন সন্ত্রাস চালানো যায় কিনা তার একটি টেস্ট কেস হিসেবে বিএনপি দুইটি বাসে আগুন দিয়েছে বলেন সেতুমন্ত্রী।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

ড. কামালকে কূটনীতিকরা, পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী কাকে বানাবেন?

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ঢাকায় অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন বিএনপি ও জাতীয় ঐক্য . . . বিস্তারিত

খালেদার জিয়ার চ্যারিট্যাবল মামলায় হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে জিয়া চ্যারিট্যাবল ট্রাস্ট মামলার কার্যক্রম বিচারিক আদালতে চলবে হ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com