খালেদাকে বাই বলতে চায় বিএনপি নেতারা: হাছান মাহমুদ

০৭ ডিসেম্বর,২০১৭

খালেদাকে বাই বলতে চায় বিএনপি নেতারা: হাছান মাহমুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: বিএনপির নেতারাই দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শাস্তি চেয়ে তাকে বাই বলতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, বিএনপির অনেক নেতাই সরকারের সাথে তলে তলে যোগাযোগ করছেন। কারণ তারা চায় বেগম জিয়ার শাস্তি হউক। আর খালেদা জিয়ার শাস্তি হলেই তারা খালেদাকে টা টা বাই বাই দিয়ে অন্য কোন দল গঠন করবে নয়তো সরকারের সাথে আসতে চাইবে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, আওয়ামী লীগ নেতা এমএ করিম, বলরাম পোদ্দার প্রমুখ।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের সমালোচনা করে হাছান মাহমুদ বলেন, খালেদা জিয়া যখন দুর্নীতিতে বিদেশে ধরা পড়েছে তখন আপনারা চুপসে গেছেন। আপনাদের মুখে কোন কথা নেই। এটি যদি আজ দেশের কোন পত্রিকা প্রকাশ করত তাহলে বলতেন এটা সরকারের ষড়যন্ত্র। এখন আর কিছু বলতে পারছেনা। কারণ বিদেশের পত্রিকায় খালেদা জিয়ার অবৈধ অর্থের কথা প্রকাশ করেছে।

সরকারের সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় দেশকে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন বানিয়েছিলেন। আর এখন তিনি নিজেই দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেলেন।

খালেদা জিয়ার অবৈধ অর্থ বিদেশ থেকে ফেরত আনার দাবি জানিয়ে আওয়ামী লীগের এই মুখপাত্র বলেন, এর আগেও তারেক, কোকোর অবৈধ অর্থ দেশে ফেরত আনা হয়েছে। আমি দাবি জানাবো সরকার যেন সেই প্রক্রিয়ায় খালেদা জিয়ার অবৈধ অর্থ দেশে ফিরিয়ে আনে।

চোরের মায়ের বড় গলা, খালেদাকে হাছান মাহমুদ
ঢাকা: চোরের মায়ের বড় গলা বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, চোরের মায়ের বড় গলা। শুধু তাই নয় তিনি (খালেদা জিয়া) নিজেও চোর। যা তদন্তে বেরিয়ে এসেছে। তার গুণধর পুত্রের বিরুদ্ধে এফবিআই সাক্ষ্য দিয়ে গেছে। বেগম খালেদা জিয়ার লজ্জা হয় কিনা জানি না। কিন্তু এগুলো বলতে আমার লজ্জা হয়।

হাছান মাহমুদ বলেন, সৌদিআরবে জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে সম্পত্তি পাচারের অভিযোগ তদন্তে বের হয়ে আসায় বিএনপি নেতারা চুপ হয়ে গেছেন । সৌদিআরবসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে তাদের সম্পত্তি বিক্রি করে ফেরত আনার দাবি জানাচ্ছি। যখনই সত্য বেরিয়ে আসে তখনই বিএনপি নেতারা চুপ হয়ে যায়।

রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জিয়া পরিবার কর্তৃক সৌদি আরবসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অবৈধভাবে পাচার হওয়া অর্থ উদ্ধার ও বিচারের দাবিতে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে এ মানববন্ধন আয়োজন করা হয়।

সংগঠনের সহ-সভাপতি আসরারুল হাসান আসুর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ফাল্গুনী হামিদ, সহসভাপতি আবদুল মতিন ভূইয়া, দিলারা প্রমুখ।

খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে সরকারের সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আদালতে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা অনুযায়ী বেগম জিয়াকে গ্রেপ্তার করা হউক। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানাবো তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য।

বিএনপি নেতা মওদুদ আহমেদের বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের এই মুখপাত্র বলেন, তিনি বলেছেন, যে কোন সময় নির্বাচনের জন্য বিএনপি প্রস্তুত। তাকে অভিনন্দন জানাই। কিন্তু তিনি আবার বলে দিয়েছেন, শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাবেন না। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে। বিএনপির আবদার পূরণের জন্য মৃত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর জীবিত হবে না। তাদের আবদার আর কেউ পূরণ করবে না।

আওয়ামী লীগ একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন চায় উল্লেখ করে দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বলেন, আপনার নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন। শেখ হাসিনার সরকার একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশনকে সব ধরনের সহায়তা করবে।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

ড. কামালকে কূটনীতিকরা, পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী কাকে বানাবেন?

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ঢাকায় অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন বিএনপি ও জাতীয় ঐক্য . . . বিস্তারিত

খালেদার জিয়ার চ্যারিট্যাবল মামলায় হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে জিয়া চ্যারিট্যাবল ট্রাস্ট মামলার কার্যক্রম বিচারিক আদালতে চলবে হ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com