আগামীকালও নির্বাচনে যেতে প্রস্তুত বিএনপি: মির্জা ফখরুল

০৬ ডিসেম্বর,২০১৭

আগামীকালও নির্বাচনে যেতে প্রস্তুত বিএনপি: মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: ‘আওয়ামী লীগের অধীনে নির্বাচন না হলে শুধু আগাম নয় আগামীকালও নির্বাচনে যেতে প্রস্তুত বিএনপি’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথ সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও সিইসির দেওয়া বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি নেতা এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল আরো বলেন, আগাম নির্বাচনের জন্য বিএনপি প্রস্তুত আছে। নির্বাচন যদি আগামীকালও হয় সেটার জন্যও বিএনপির প্রস্তুত। তবে, নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙ্গে দিতে হবে। প্রধানমন্ত্রীকে তার পদ ছাড়তে হবে।

‘স্বৈরাচার পতন দিবসে বিএনপির কোনো কর্মসূচি নেই কেন’—সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপি নেতা বলেন, ‘স্বৈরাচারের পতন হয়েছে, নাকি (স্বৈরাচার) নতুন করে জেগে উঠেছে?’

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টির সঙ্গে বিএনপির যোগাযোগ করার কথা শোনা গেছে; এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ যদি জামায়াতে ইসলামী, ইসলামী আন্দোলনের সঙ্গে আন্দোলন করতে পারে, আসন বণ্টন করতে পারে অতীতে, তাহলে নাথিং ইস ইমপসিবল ইন পার্লামেন্টারি ডেমোক্রেসি।’

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচন প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘মেয়র আনিসুল হকের সাথে আমার ব্যক্তিগত সম্পর্ক ছিল। তিনি নিঃসন্দেহে উন্নয়নের প্রভাব দেখিয়েছেন। তবে তাঁর মৃত্যুর পর এখনো পর্যন্ত আমাদের কোনো দলীয় সিদ্ধান্ত হয়নি, আমরা দলের পক্ষ থেকে প্রার্থী দেব কি না। তবে আমরা এটি প্রমাণ করতে সফল হয়েছি এ সরকারের অধীনে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন হয় না।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা যে লক্ষ্য নিয়ে যুদ্ধ করেছিলাম, স্বাধীনতার এত বছর পরেও সেই স্বপ্ন সেই লক্ষ্যের প্রতিফলন হচ্ছে না। ক্ষমতাসীন দল সংবিধানে দলীয় অনুচ্ছেদ বসিয়েছে।’

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ‘যুক্তফ্রন্ট’ গঠনের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘জোট তৈরি করা হচ্ছে স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য। যারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে এ রকম ব্যক্তি-সংগঠনকেও এই জোটে আহ্বান জানাই এবং স্বাগত জানাচ্ছি। জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য চারদলীয় জোট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’

এদিকে সকালে যৌথ সভা চলাকালে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে ছয় নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানান ফখরুল।

এসময় বিজয় দিবস উপলক্ষে ১০ দিনব্যাপী কর্মসূচিও পালন করেন বিএনপি বিএনপি মহাসচিব।এর মধ্যে ১৪ ডিসেম্বর সকালে মিরপুর বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ অর্পণ। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এ পুষ্পার্ঘ অর্পণ করবেন। এছাড়াও এ উপলক্ষে আলোচনা সভা করা হবে।

মহান বিজয় দিবসে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারা দেশে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নেতাকর্মীদের নিয়ে সাভার স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাবেন। এরপর তিনি নেতাকর্মীদের নিয়ে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা জানাবেন। সেখানে তিনি ফাতেহা পাঠ, দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেবেন।

১৭ ডিসেম্বর আনন্দ শোভাযাত্রা, ১৯ মুক্তমঞ্চে আলোচনা সভা, এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা দলের উদ্যোগে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে ২৪ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ করা হবে। সমাবেশে প্রধান অতিথি থাকবেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব মুজিবুর রহমান সারোয়ার, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি প্রমুখ।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

জাতীয় ঐক্য নয়, ওটা হচ্ছে জাতীয় শত্রুদের ঐক্য: নৌমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনবরিশাল: নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, ড. কামাল হোসেন স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গে জাতীয় ঐক্য ক . . . বিস্তারিত

ড. কামালকে কূটনীতিকরা, পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী কাকে বানাবেন?

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: ঢাকায় অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন বিএনপি ও জাতীয় ঐক্য . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com