সর্বশেষ সংবাদ: |
  • গাজীপুরের টঙ্গীর আরিচপুরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত, আশঙ্কাজনক অবস্থায় একজন হাসপাতালে
  • নির্বাচনের মাঠ এখনও লেভেল প্লেয়িং হয়নি: ড. কামাল
  • প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন চায় না নির্বাচন কমিশন, প্রার্থীদের সমান সুযোগ নিশ্চিতে নিরপেক্ষতার প্রশ্নে ছাড় নয় : কমিশনার শাহাদাত
  • বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার শুরু হবে ১৮ নভেম্বর, প্রথম দিন রাজশাহী ও রংপুর বিভাগ

দেশের জলসীমায় ২৬টি দ্বীপ ও সোয়া লাখ একর জমি জেগে উঠেছে: সংসদে ভূমিমন্ত্রী

১৩ নভেম্বর,২০১৭

দেশের জলসীমায় ২৬টি দ্বীপ ও সোয়া লাখ একর জমি জেগে উঠেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: বিগত ১০ বছরে দেশের জলসীমায় মোট ২৬ টি দ্বীপ এবং এসব দ্বীপে মোট ১ লাখ ২৫ হাজার ৩৭০ একর ভূমি জেগে উঠেছে বলে জাতীয় সংসদে জানিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ। সোমবার মহিলা আসন ২৩ এর সংসদ সদস্য বেগম পিনু খানের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী জানান, বিগত ১০ বছরে বঙ্গোপসাগর তথা নোয়াখালী জেলার জলসীমায় ৫ টি দ্বীপ জেগে উঠেছে। দ্বীপগুলো হলো: হাতিয়ার ভাষান চর, স্বর্ণদ্বীপ, চরকবির, চর বন্দনা এবং সুবর্ণচরের রজনীগন্ধা। উক্ত চরসমূহের মোট ৭৫ হাজার ৮৭৪ একর জমি জেগে উঠেছে।

এছাড়া চট্টগ্রাম জেলাধীন সন্দ্বীপ উপজেলায় ২টি দ্বীপ জেগে উঠেছে- ঠেঙ্গারচর ও জাহাজ্জ্যোর চর। এতে আনুমানিক ১৮ হাজার ৯১২ দশমিক ৯০ একর জমি জেগে উঠেছে। আবার কক্সবাজার জেলার জলসীমায় ১৯ টি দ্বীপ জেগে উঠেছে। উক্ত চরসমূহে মোট ৩০ হাজার ৫৮৩ একর খাস জমি রয়েছে। এগুলো হলো: কক্সবাজারের বাঁকখালী খরাট চর, উখিয়ার জালিয়াপালং চরপাড়া, টেকনাফের জিনজিরাদ্বীপ, মধ্যহ্নীলা, উত্তর হ্নীলা, শাহপরার দ্বীপ। মহেশখালীর মাতারবাড়ি মৌজা, ধলঘাটা, হাঁসের চর, কালারমারছড়া, উত্তরনলবিলা, আমাবশ্যাখালী, কুতুবজোম, সোনাদিয়া, ঘটিভাঙ্গা, সোনারদিয়ার উত্তরে ঘাটিভাঙা মৌজা এবং হামিদরদিয়া। কুতুবদিয়ায় কৈয়ারবিল, বড়ঘোপ এবং নতুন ঘোনা। পেকুয়ায় করিয়ারদিয়া এবং দুবাইঘোনা। এসব দ্বীপগুলো এখনো জনশুন্য এবং দ্বীপগুলো সেনা বাহিনীর হাতে ন্যস্ত করা হয়েছে। মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গাদের সাময়িকভাবে বসবাসের জন্য এসব দ্বীপে সেনা বাহিনী জরিপ করছে বলে জানান ভূমিমন্ত্রী।

আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য গাজী ম. ম আমজাদ হোসেনের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে ভূমি মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ বলেছেন, দেশের প্রত্যেক সহকারী কমিশনার (ভূমি)-এসিল্যান্ড একটি করে গাড়ি পাবেন। তাদের মাঝে বিতরণের জন্য ইতিমধ্যে ১০০ গাড়ি কেনা হয়েছে।

ভূমিমন্ত্রী বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়নে সহকারী কমিশনারদের (ভূমি) অনেক দৌড়াদৌড়ি করতে হয়। তাদের মাঝে মাঝে অভিযানও পরিচালনা করতে হয়। কাজেই তাদের সবারই গাড়ি দরকার। এরইমধ্যে ১০০ গাড়ি কেনা করা হয়েছে, আরও গাড়ি কেনা হবে। পর্যায়ক্রমে সব জেলা-উপজেলা পর্যায়ের এসিল্যান্ডদের গাড়ি দেওয়া হবে।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

‘বেগম খালেদা জিয়া: হার লাইফ, হার স্টোরি’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন রবিবার

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন কারাবন্দি বেগম খালেদা জিয়ার জীবনী নিয়ে ‘বেগম . . . বিস্তারিত

১৪ দলের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে নির্বাচনে যাওয়ার চেষ্টা চলছে: বি. চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চ . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com