অর্থমন্ত্রীর রাবিশে আগে আমরা হাসতাম, এখন সাধারণ মানুষ হাসে: জাপা এমপি

১৮ জুন,২০১৭

নিউজ ডেস্ক
আরটিএনএন
ঢাকা: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল মুহিতের তীব্র সমালোচনা করে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নোমান বলেছেন, ‘অর্থমন্ত্রী কথায় কথায় রাবিশ বলেন। তা শুনে আগে আমরা হাসতাম, এখন সাধারণ মানুষ হাসে। এটা ওনার বয়সের ভারে নাকি কৌশল, বলা মুশকিল।’

রবিবার জাতীয় সংসদে বাজেট আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এই  মন্তব্য করেন।

প্রস্তাবিত বাজেটকে তাচ্ছিল্যের অট্টহাসি আখ্যা দিয়ে নোমান বলেন, ‘বাজেট নিয়ে আলোচনা করে কী হবে? আমরা যত মায়াকান্নাই করি না কেন, বাজেট কণ্ঠভোটে পাস হয়ে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘উন্নয়নের মহাসড়কে ওঠার সিঁড়ি জনগণ খুঁজে পাচ্ছে না। মানুষ বক্তৃতা শুনতে চায় না, মুক্তি চায়। ঈদের আগে যে দুর্ভোগ, তা থেকে মুক্তি চায়।’

সরকারদলীয় নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘দলের নেতা-কর্মীদের লোভাতুর জিহ্বার লাগাম দিন, দেশ ভালো নেই।’

রাজধানীতে নিজের সংসদীয় এলাকায় জলাবদ্ধতার কথা উল্লেখ করে জাতীয় পার্টির আরেক সংসদ সদস্য আবু হোসেন বলেছেন, ‘এলাকাবাসীর কাছে মুখ দেখাতে পারছি না। আমার কী করার আছে? এ দপ্তর থেকে ওই দপ্তরে দৌড়াচ্ছি।’

সম্প্রতি বৃষ্টিতে ঢাকা ও চট্টগ্রাম নগরে জলাবদ্ধতা তৈরি হওয়ার কথা তুলে ধরে আবু হোসেন বলেন, অনেকে উপহাস করে বলেন, ‘নৌকায় ভোট দিয়েছেন তাই সরকার নৌকায় চড়াচ্ছে। ভবিষ্যতে মনে হয় তারা আর খুশিমনে নৌকায় উঠবেন না।’

বিরোধী দলের সাংসদ আবু হোসেন বলেন, পাহাড়ে মৃত্যুর দায় কে নেবে? প্রকৃতির ওপর দায় দিলে প্রকৃত অপরাধীরা ছাড়া পাবে। বন উজাড় করা হচ্ছে, পাহাড় কাটা হচ্ছে, স্থানীয় প্রশাসন ব্যবস্থা নেয় না।

ব্যাংক আমানতে আবগারি শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাবের বিরোধিতা করে আবু হোসেন বলেন, বিশ্বের কোথাও ব্যাংক হিসাবে আবগারি শুল্ক নেই। এ প্রস্তাব অত্যন্ত বিপজ্জনক। এতে আমানতকারীরা নিরুৎসাহিত হবেন। প্রস্তাবিত বাজেটের সমালোচনা করে তিনি বলেন, এই বাজেট মানুষকে হাসিয়েছে, স্তম্ভিত করেছে, হতাশ করেছে। এটি অনিশ্চিত পদযাত্রার বাজেট।

সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাংসদ আমাতুল কিবরিয়া বলেন, ‘যাঁরা কর দেন, তাঁদের ওপর করের বোঝা চাপানো হয়েছে। নৈতিকভাবে হোক বা যুক্তি দিয়ে হোক, এটা মেনে নিতে পারছি না।’

সরকারদলীয় সাংসদ জাহিদ মালিক বলেন, ব্যাংক আমানতে আবগারি শুল্ক নিয়ে অনেক হইচই হচ্ছে। এখান থেকে পাওয়া যাবে ৩৫০ কোটি টাকা। আওয়ামী লীগ জনগণের দল। জনগণের কথা ভেবে এটা প্রত্যাহার করা এবং কাগজ, সাবান, খাদ্যপণ্য, তাঁতের ওপর ভ্যাট কমানো দরকার।

অন্যদের মধ্যে পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, আওয়ামী লীগের ফরহাদ হোসেন, সৈয়দা সায়রা মহসীন, কামাল আহমেদ মজুমদার, ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, খন্দকার আবদুল বাতেন, আলী আজম, কামরুল আশরাফ খান, হোসনে আরা লুৎফা, উম্মে রাজিয়া কাজল, লুৎফা তাহের, সাবিনা আক্তার প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

বাংলাদেশ বাঁচাতে হাসিনার আ.লীগকে বাঁচাতে হবে: কাদের

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ বিজয়ী হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ . . . বিস্তারিত

ধানের শীষের বিজয় ছিনিয়ে নেয়ার ষড়যন্ত্র চলছে: টুকু

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনরংপুর: ‘ধানের শীষের বিজয় ছিনিয়ে নেয়ার জন্য মহাজোট নানামুখি ষড়যন্ত্র করছে। সব ষড়যন্ত্রকে রং . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com