বিএনপির সাংবিধানিক অধিকার বঞ্চিত করছে সরকার: মোশাররফ

১০ জানুয়ারি,২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

আরটিএনএন

ঢাকা:  সরকার এদেশের গণতন্ত্রকে বাক্সে বন্দি করে রেখেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ীকমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন।


তিনি বলেন, ২০০৭ সালের ১/১১ এবং ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে বাক্সে বন্দি করেছে সরকার।


মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।


‘১/১১ ষড়যন্ত্র এবং বর্তমান প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে স্বাধীনতা ফোরাম।


খন্দকার মোশাররফ বলেন, ১/১১ কে বিএনপি যেমনিভাবে স্মরণ করে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারিকে বিএনপি একইভাবে স্মরণ করে। কারণ এই দিন দুটিতে বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে বাক্স বন্দি করা হয়েছে। মঈন উদ্দীন-ফখরুদ্দীনের সরকার ছিল শেখ হাসিনার ষড়যন্ত্রের ফসল। আর তারাই ষড়যন্ত্র করে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় বসিয়েছে।


বিএনপির সিনিয়র এই নেতা বলেন, আমরা ৭ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে ছিলাম, আমাদেরকে দেয়া হয়নি। অথচ তারা নিজেরা সমাবেশ করার পাশাপাশি তথাকথিত গৃহপালিত বিরোধীদলকে অনুমতি দিচ্ছে। যার মাধ্যমে সরকার বিএনপিকে সকল সাংবিধানিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে।


তিনি আরো বলেন, সরকার জনগণ এবং গণতন্ত্রকে ভয় পায় যার কারণে ৭ নভেম্বর এবং ৫ জানুয়ারির কথা শুনলে তাদের বুকের মধ্যে কম্পনের সৃষ্টি হয়।


এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমত উল্লাহ,বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবি এম মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।

মন্তব্য

মতামত দিন

রাজনীতি পাতার আরো খবর

আওয়ামী লীগ ফাঁদে পড়েছে: মির্জা আব্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেছেন, ‘বিএনপি খাদ . . . বিস্তারিত

আ.লীগে এখন নেতার অভাব নেই, অভাব কর্মীর: কাদের

নিজস্ব প্রতিনিধিআরটিএনএনময়মনসিংহ: আওয়ামী লীগে এখন নেতার অভাব নেই, তবে কর্মীর অভাব রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 



ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান, গোলাম রসুল প্লাজা (তৃতীয় তলা), ৪০৪ দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com