ব্রেকিং সংবাদ: |
  • ওসির গুলিতে বিএনপি নেতা মাহাবুব উদ্দিন খোকন গুরুতর আহত

মুসলিম বিজ্ঞানী বালক যুক্তরাষ্ট্রে ‘সন্ত্রাসী’, কানাডায় ‘হিরো!’

মঈনুল আলম ২০ সেপ্টেম্বর,২০১৫
মঈনুল আলম

নিজের আবিষ্কৃত একটি ঘড়ি পরে স্কুলে যাওয়ায় ১৪ বছর বয়স্ক যে মুসলিম কিশোরকে যুক্তরাষ্ট্রে টেক্সাসের একটি স্কুলে পুলিশ বোমা বানানোর সন্ত্রাসী বলে গ্রেপ্তার করেছিল, তাকে কানাডার নভোচারীসহ টরন্টোর নাগরিকেরা টরন্টোয় লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে।

১৪ সেপ্টেম্বর এই বালক আহমেদ মোহাম্মদ তার হাইস্কুলে নিজের বানানো ঘড়িটি দেখালে শিক্ষকরা এটাকে বোমা বিস্ফোরণের টাইমঘড়ি বলে ধরে নেন। যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ‘নাসা’র নামাঙ্কিত শার্ট, কিন্তু হাতে হাতকড়া দেয়া আহমেদ মোহাম্মদের ছবি বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে।

পাঁচ লক্ষাধিক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীর চোখে অতি দ্রুত একজন ‘বিজ্ঞানী তারকা’য় পরিণত হয় আহমেদ মোহাম্মদ।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তার প্রতি সমর্থন প্রকাশ করেন। কয়েকটি প্রধান নগরীর মধ্যে কানাডার টরন্টোর পক্ষে কানাডার অগ্রণী নভোচারী ক্রিস হ্যাডফিল্ড আগামী মাসে টরন্টোয় অনুষ্ঠিতব্য জেনারেটর ফেস্টিভালে আহমেদ মোহাম্মদকে বিশেষ অতিথি হওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। এই ফেস্টিভালে আধুনিকতম বিজ্ঞানের ওপর বক্তৃতার ফাঁকে ফাঁকে সঙ্গীত ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকবে।

ফেস্টিভালের অন্যতম আয়োজক নভোচারী হ্যাডফিল্ডের ছেলে ইভান হ্যাডফিল্ড যুক্তরাষ্ট্রে মোহাম্মদের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করেছেন। তবে মোহাম্মদ টরন্টো আসবে কি না, তার পরিবার তা ভেবে সিদ্ধান্ত জানাবে বলেছে।

ইতোমধ্যে টরন্টোর একটি পাঁচ তারকা হোটেল সম্পূর্ণ বিনা চার্জে মোহাম্মদ ও সঙ্গীদের রাখার প্রস্তাব দিয়েছে। টরন্টোর একাধিক নাগরিক গ্রুপ মোহাম্মদের সফরের সব ব্যয় বহনের প্রস্তাব দিয়েছে।

ইভান হ্যাডফিল্ড মিডিয়াকে বলেন, মোহাম্মদদের প্রতি যে ব্যবহার করা হয়েছে তা লজ্জাকর এবং এ ঘটনায় টেক্সাসের আর্ভিং শহরের পুলিশ যে ‘সামগ্রিক মূর্খতা’ প্রকাশ করেছে, এ ঘটনা তা শোধরানোর প্রয়াস শুরু করবে। অনেকেই বলেছেন, যেহেতু মোহাম্মদ একজন মুসলিম, সেহেতু পুলিশ বর্ণবাদী দৃষ্টিতে মোহাম্মদকে দেখে গ্রেপ্তার করে।

ইভান বলেন, ‘সে একজন কিশোর। সে হঠাৎ এক দারুণ মহৎ প্রতীকে পরিণত হয়েছে। এটা তাকে ও তার পরিবারকে বিচলিত করার মতো ঘটনা হয়েছে। আশা করি, টরন্টোর উৎসবে অংশ নিলে মোহাম্মদ ও তার পরিবার অনেক স্বস্তি ও আনন্দ পাবে।’

মুখ আবৃত রাখার অধিকার বিল কানাডার সর্বোচ্চ আদালতে
কানাডায় নতুন নাগরিক মুসলিম মহিলারা নাগরিকত্বের শপথ অনুষ্ঠানে শপথ নেয়ার সময় নেকাব দিয়ে মুখ ঢেকে রাখতে পারবেন বলে কানাডার সর্বোচ্চ আদালত ‘ফেডারেল কোর্ট অব অ্যাপিলস’ গত ১৫ সেপ্টেম্বর রায় দিয়েছে।

এই রায় দেয়ার সময় ইতোপূর্বে নাগরিকত্বের শপথ নেয়ার সময় নাগরিকদের অবশ্যই তাদের মুখমণ্ডল অনাবৃত রাখতে হবে বলে কানাডা সরকার যে বিধান জারি করেছিল, ফেডারেল কোর্ট তা বাতিল করে দিয়েছেন। টরন্টোবাসী জুনেরা ইসহাক কানাডা সরকারের মুখ অনাবৃত রাখার বিধানের বিরুদ্ধে নিম্ন আদালতে এই মর্মে আরজি পেশ করেন যে, এই নিষেধাজ্ঞা কানাডার ‘চার্টার অব রাইটস অ্যান্ড ফ্রিডমস’ জুনেরা ইসহাককে ধর্মীয় স্বাধীনতা ভোগ করার যে অধিকার দিয়েছে, তা লঙ্ঘিত হয়েছে।

নিম্ন আদালত জুনেরা ইসহাকের আরজি গ্রহণ করে গত ফেব্রুয়ারিতে রায় দেয়— শপথ উচ্চারণের সময় শুধু চোখ দুটি বাদ দিয়ে সমগ্র মুখ আবৃত করা নেকাব মুখে রাখা যাবে। কানাডার কনজারভেটিভ প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হার্পার এই রায়কে ‘অগ্রহণীয়’ বলে আখ্যায়িত করে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেছিলেন।

ফেডারেল আপিল কোর্টের মুখপাত্র মিডিয়ায় বলেন, ফেডারেল আপিল আদালতের তিন বিচারক আপিলটি দ্রুত নিষ্পত্তি করার প্রয়োজনীয়তা স্বীকার করেছেন, যাতে জুনেরা ইসহাক দ্রুত নাগরিকত্ব শপথ নিয়ে ১৯ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় সংসদের নির্বাচনে ভোট দিতে পারেন। রায়ে আবেদনকারীকে মামলার সমুদয় ব্যয় পূরণ করে দিতে বলা হয়েছে।

জুনেরা ইসহাক ২০০৮ সালে পাকিস্তান থেকে কানাডায় আসেন এবং ২০১৩ সালে নাগরিকত্ব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। কিন্তু ২০১১ সালে কানাডা সরকার নাগরিকত্ব আইনে শপথ অনুষ্ঠানে অবশ্যই মুখ অনাবৃত রাখার যে বিধান রাখা হয়, জুনেরা ইসহাক তা মেনে তার মুখ অনাবৃত করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে শপথ অনুষ্ঠান থেকে বিরত থাকেন এবং নিম্ন আদালতের শরণাপন্ন হন।

কানাডা তার ‘মাল্টিকালচারিলিজম’ পলিসি নিয়ে গর্ববোধ করে। এ কারণে পুলিশের চাকরিতে নিযুক্তিকালে শিখ সদস্যদের শপথ উচ্চারণের বেলায় মাথায় তাদের ঐতিহ্যবাহী পাগড়ি ও কোমরে কৃপাণ ধারণ করতে দেয়া হয়।

লেখক: প্রবীণ সাংবাদিক, প্রবাসী
moyeenlalam@hotmail.com

মন্তব্য

মতামত দিন

অন্যান্য কলাম

adv


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: ড. সরদার এম. আনিছুর রহমান,
ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com